+

ভিনগ্রহের জীবরা ঘুরছে আমাদের চারপাশে

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ৯ দিন ১১ ঘন্টা ৫৯ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1090
...

 

পৃথিবীই কি এই ব্রহ্মাণ্ডে একমাত্র যেখানে প্রাণের অস্তিত্ব রয়েছে? এই প্রশ্নের উত্তর বিজ্ঞানীরা খুঁজে চলেছেন নিরন্তর। এরই মধ্যে আশ্চর্য দাবি করলেন নাসার বিজ্ঞানী। জানিয়ে দিলেন, ভিনগ্রহ থেকে প্রাণীরা এসে হয়তো এরই মধ্যে নেমে পড়েছে পৃথিবীতে! 
নাসা এমেস রিসার্চ সেন্টার’-এর এক কম্পিউটার বিজ্ঞানী সিলভানো পি কলোম্বানো জানিয়েছেন, মানুষ হয়তো টেরই পাচ্ছে না ভিনগ্রহীরা পৃথিবীতে এসে বাসা বেঁধেছে। কেবল তাদের অদ্ভুত আকৃতি ও চেহারার কারণে তারা দৃশ্যমান হচ্ছে না।
কলোম্বানোর দাবি, হতেই পারে অন্য গ্রহের বাসিন্দারা কার্বন দিয়ে তৈরি নয়। তারা এমন কোনও উপাদানে তৈরি যে মানুষ তাদের দেখতেই পাচ্ছে না। 
তাঁর গবেষণাপত্রে এ বিষয়ে তাঁর বক্তব্য জানাতে গিয়ে তিনি এমনটাই লিখেছেন। এ জন্য অন্যান্য পদ্ধতিতে অন্বেষণ চালিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার বলে তিনি জানান। মানুষের প্রযুক্তিগত বিদ্যা যে খুব পুরনো নয়, সে কথা মনে করিয়ে দিতে কলোম্বানো জানান, মানব ইতিহাসে প্রযুক্তির উন্নতির সময়সীমা ১০ হাজার বছর। আর বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব উন্নতির ইতিহাস মাত্র ৫০০ বছরের। 
কেবল কলোম্বানোই নন, বিজ্ঞানী ম্যাগি আদ্রেইন পোককও জানিয়েছেন, হয়তো অন্য গ্রহের প্রাণীরা এমন অন্য রকম দেখতে, যে মানুষ তাদের হদিশই পাচ্ছে না। 
প্রসঙ্গত, প্রয়াত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং জানিয়েছিলেন, অন্য গ্রহে প্রাণ থাকতেই পারে। কিন্তু তারা যে মানুষের মতো কিংবা পৃথিবীর কোনও জীবের মতো দেখতে হবে, এমনটা ধরে নেওয়া ঠিক নয়। তারা একেবারে অন্যরকম হতেই পারে জানিয়ে হকিং বলেছিলেন, এমনকী গ্যাসীয় বা তরল প্রাণীও হতে পারে। কলোম্বানোর কথাতেও সেই মতবাদই নতুন করে মান্যতা পেল। এখন দেখার, অদূর ভবিষ্যতে বিজ্ঞানীরা সত্যিই তেমন কোন অদেখা, অজানা ভিনগ্রহীর সন্ধান দিতে পারেন কি না। 
ভিনগ্রহের দূত:
হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের জ্যোতির্বিজ্ঞানী রবার্ট ওয়েরিকের টেলিস্কোপে ধরা পড়ে এক আশ্চর্য মহাজাগতিক বস্তু। সৌরজগতের বাইরে থেকে আসা বস্তুটির মধ্যে ধুমকেতু ও উল্কাপিণ্ড— দুইয়েরই চিহ্ন বর্তমান থাকায় স্বাভাবিক ভাবেই চমকে উঠেছিলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। নানা আলোচনা সেই থেকে হয়ে এসেছে এই কৃষ্ণ লাল রঙের রহস্যময় বস্তু নিয়ে। ভিনগ্রহীদের পাঠানো রহস্যময় দূত বলেই ভাবা শুরু হয়ে গিয়েছে ওউমুয়ামুয়াকে। কন্সপিরেসি থিয়োরির প্রবক্তারা বলতে শুরু করে দিয়েছেন, ওউমুয়ামুয়ার আগমন আসলে সতর্কবার্তা। পৃথিবীকে আক্রমণ করার আগে নজরদারি করতেই নাকি এই বস্তুটিকে পাঠানো হয়েছে! গত বছর থেকেই তাকে ঘিরে রহস্য তুঙ্গে।

...
MD. Shajalal Rana(SJB:E078)
Mobile : 01881715240

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

সর্বশেষ সংবাদ