+

নওগাঁর তালাক দেয়া স্ত্রীর খাবার খেয়ে মারা গেছে-অভিযোগ মেয়ে হামিদার

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ১২ দিন ১৫ ঘন্টা ১৭ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 820
...

হাবিব স্টাফরিপোর্টারঃ

নওগাঁর পত্নীতলায় পুলিশী নির্যাতনে নয়,তালাক দেয়া স্ত্রীর খাবার খেয়ে মারা গেছে-অভিযোগ মেয়ে হামিদার

নওগাঁর পত্নীতলায় কৃষক হামিদুর রহমান (৫৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি লাশ দাফন নিয়েও দিনভর পরিবারের দু’পক্ষের মধ্যে টানা হেঁচড়ার ঘটনা ঘটেছে। প্রথমে এই মৃত্যু নিয়ে পুলিশের দিকে সন্ধেহের তীর ছুঁড়লেও বর্তমানে আসল খুনিদের বিচার হোক এটাই এলাকাবাসীরা জানায়।
স্থানীয়বাসীরা জানায়,
উপজেলার বোরাম গ্রামের মৃত খোদা বক্সের ছেলে কৃষক হামিদুর তার স্ত্রীকে তালাক দেয়। স্ত্রীর সঙ্গে বিবাদ মেটাতে ওই কৃষক হামিদুর ক’দিন আগে থানায় অভিযোগ করেছিলেন। পরবর্তীতে তার স্ত্রীও একই থানায় অভিযোগ করেছিলো। তার প্রেক্ষিতে গত ২৫/০৪/২০২১ ইং তারিখ রোজ রবিবার স্বামী-স্ত্রীর ওই বিবাদটি সমঝোতা করে দেয় পত্নীতলা থানা পুলিশ এবং দু,একটা চর,থাপ্পর মেরেছে বলেও জানা যায়। এরপর তাহারা বাড়ী চলে যায়।
মৃত হামিদুরের মেয়ে হামিদা জানায়,
বাড়ীতে এসে ২দিন ধরে হামিদুরের তালাক প্রাপ্তা ২য় স্ত্রী (ফাইমা) ২ ছেলে (ফিরোজ ও এমরান) এবং এক মেয়ে বার বার তাকে আবারও বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে থাকে।
কিন্তু কৃষক হামিদুর তাকে আবারও বিয়ে করতে নারাজ এবং তাকে বাড়ী থেকে চলে যেতে বলে।
হামিদা জানায়,
গত ২৭/০৪/২০২১ ইং তারিখ রোজ মঙ্গলবার বিকেলে তার বাবা হামিদুরকে তালাক প্রাপ্তা মা,ও তার ২ছেলে ও একটি মেয়ে আবারও বিয়ে করার জন্য চাপ দেয়,এক সময় তারা মারপিট করে। এরপরও রাজি না হলে জোর পূর্বক বিয়ে দেওয়ার জন্য স্থানীয় কাজী মোশারফকে মোবাইল ফোনে আসতে বলে। এ সব চিৎকার চেচামেচি শুনে হামিদুরের মেয়ে হামিদা সেখানে উপস্থিত হলে, হামিদাকে তার বাবার কাছে যেতে দেয়না। হামিদুরের চিৎকার শুনে জোরপূর্বক হামিদা তার বাবার কাছে গেলে, তার বাবা হামিদুর তাকে জানায়, তার তালাক প্রাপ্তা মা তাকে কি যেন খাওয়াইছে এবং তার বুক জ্বলে যাচ্ছে এবং তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। হামিদা জানায়, সেখানে তার বাবা কিছু রক্ত বমিও করেছিলো। তরিঘরি করে প্রতিবেশীদের সহায়তায় হামিদাসহ তার বাবাকে পত্নীতলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেও হামিদাকে বারবার বলেছে আমাকে কি যে খাওয়ালো,আমার বুক জ্বলে যাচ্ছে। হাসপাতালে যাওয়ার পর সেখানেও রক্ত বমি করে, নার্সেরা বলে, বিষাক্ত গন্ধ বের হচ্ছে। ডাক্তার তাদের তারাতারি রাজশাহী নিয়ে যেতে বলে। রাজশাহী মেডিকেলে যাওয়ার পথিমধ্যে রাত আনুমানিক ১০টার সময় কৃষক দিনমজুর হামিদুর মারা যায়। সাংবাদিকেরা, মৃত হামিদুরের বাড়ীতে গেলে, তার তালাক প্রাপ্তা স্ত্রী তার বাড়ীতেই, ঘরের ভীতর অসুস্থ্য আছে বলে, তার বড় ছেলে ফিরোজের বউ জানায়। এরপর বাড়ীর সামনে লোকজন জড়ো হতে থাকে এবং সকলেই জানায়,হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় হামিদুর বলছিলো, কি যেন তাকে খাওয়ায়ে দিয়েছে, তাার বুকটা জ্বলে যাচ্ছে, সেে আরোো বলে, হয়তো বাঁচবো না, আপনারা আমার ভুলত্রুুটি ক্ষমা করে দিবেন।
এ বিষয়টি পত্নীতলা থানার ওসি মোঃ শাহ্ সামছুল আলম জানায়,পত্নীতলা থানায় একটি ইউ,ডি মামলা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট এলে বিস্তারিত জানা যাবে।
মৃত হামিদুরের মেয়ে হামিদা জানায়, পুলিশ তার বাবাকে দু,একটা চর,থাপ্পর মারতে পারে, যদি অস্বাভাবিক ভাবে মারতো, তাহলে বাবা ওখান থেকেই হাসপাতালে ভর্তি হতো। তার বাবার শরীরে কোন দাগও ছিলো না এবং তার বাবা ২ দিন ধরে ভালোই ছিলো এবং বিভিন্ন জায়গায় কাজ,কর্মও করেছে। ভালোভাবে চলা ফেরাও করেছে। তার বাবার হত্যাকারী তার তালাক প্রাপ্ত মা,তার ২ছেলে ও একটি মেয়ে। হামিদা, দেশের প্রচোলিত আইনে তার বাবার হত্যাকারীর বিচার চায়।

...
A.b.m Habibur Rahman(SJB:E634)
Mobile : 01713667189

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন
01868974512

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ