+

নিয়ামতপুরে স্বাস্থ্য বিভাগ ও কৃষি অফিস খোলা থাকলেও অফিসে নেই কর্মকর্তা

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ২৯ দিন ১৩ ঘন্টা ৩৩ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 565
...


নিয়ামতপুরের স্বাস্থ্য বিভাগ ও কৃষি অফিস খোলা থাকেলেও 
অফিসে নেই কর্মকর্তা!

নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি
করোনাকালীন ২য় ডেউয়ে মানুষের মৃত্যুমিছিল যখন বাড়ছে, অসুস্থ্যরা ছুটছেন স্বস্থ্যকেন্দ্রের দিকে ঠিক তখনই নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ক’দিন ধরেই অনুপস্থিতি স্বাস্থ্য কর্মকর্তার। করোনার এ মহাদূর্যোগে খোদ স্বাস্থ্য কর্মকর্তার এমন অনুপস্থিতি সকলকে ভাবিয়ে তুলেছে। এমন পরিস্থিতিতে হাসপাতালের গুরুতর সিদ্ধান্ত নিতেও হিমসিম খাচ্ছেন অন্য চিকিৎসকরা। 
দেশব্যপি চলছে সরকারী নির্দেশনায় ৭দিনের বিশেষ লকডাউন। এ লকডাউনে জরুরী বিভাগ ছাড়া সকল দপ্তর বন্ধ রয়েছে। কিন্তু নিয়ামতপুরের জরুরী দু’টি বিভাগের স্বাস্থ্য বিভাগ ও কৃষি অফিস খোলা থাকেলেও অফিসে নেই কর্মকর্তা। এতে ব্যাহত হচ্ছে মানুষের কাঙ্খিত সেবা। 
বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় সরজমীনে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহিঃবিভাগে দেখা যায় রোগীর অনেক ভীড়। এদের মধ্যে বেশীর ভাগই ছিলো স্বর্দিজ্বরে আক্রান্ত রোগী। চিকিৎসক কম থাকায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে। 
এরপর স্বাস্থ্য কর্মকর্তার রুমে গেলে তাকে অফিসে পাওয়া যায়নি। পরে জরুরী বিভাগে কর্মরত ডাঃ ফয়সাল নাহিদ পবিত্রর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমাদের স্যার (স্বাস্থ্য কর্মকর্তা) ছুটিতে আছেন। এ কারনে আমার ডিউটি না থাকা সত্বেও আমাকে রোগী দেখতে হচ্ছে।
নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ তোফাজ্জল হোসেসের সাথে মুঠোফনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি ছুটিতে আছি। করোনাকালীন সময়ে স্বাস্থ্যকর্মকর্তার ছুটি নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ছুটি নেওয়া যাবেনা এরকম কোন প্রজ্ঞাপন তো জারি হয়নি। তিনি বলেন, বুধবার বৈশাখী ছুটি ছিল, বৃহস্পতিবার সিভিল সার্জন থেকে ছুটি নিয়েছি। তাছাড়া শুক্রবার-শনিবার সরকারী ছুটি। এ করনে তিনি মঙ্গলবার বেলা ১টার দিকে নওগাঁ সিভিল সার্জন অফিসে কাজ সেরে দেশের বাড়ি গেছেন।  
এ ঘটনায় জানতেচাইলে নওগাঁ জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ এবিএম আবু হানিফ মুঠোফোনে জানান, নিয়ামতপুরের উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ তোফাজ্জল হোসেন আমার কাছে থেকে ছুটি নেননি। এমনকি তিনি এ করোনা কালীন সময়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বাইরে থাকতে পারেন না। আমি এ বিষয়ে খোজখবর নিচ্ছি। তিনি এমন দূর্যোগের সময়ে অফিসে না থাকলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
অপরদিকে কৃষি প্রধান দেশ হওয়ায় এবং কিছুদিনের মধ্যে বোরো ধান কৃষকের ঘরে উঠবে বলে কৃষি দপ্তর খুলে রাখার প্রজ্ঞাপনে নির্দেশ দেন সরকার। সরজমীনে উপজেলা কৃষি অফিসে উপস্থিত হলে দেখা মিলেনি কৃষি কর্মকর্তার সাথে। কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তার সাথে সকাল ১১টার সময় কথা হলে তিনি বলেন স্যার এখনও আসেননি অফিসে। 
অনুপস্থিতি নিয়ে নিয়ামতপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আমীর আব্দুল্লাহ মোঃ ওয়াহেদুজ্জামানের সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি অফিসের কাজে নওগাঁ বিএডিসি সার গুদামে আছি। কাজ সেরে অফিসে আসবো।
নওগাাঁ জেলা কৃষি কর্মকর্তা শামশুল ওয়াদুত এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আমি জানি সে তার নিয়ামতপুর অফিসে থাকবে। আমি জেনে আপনাকে জানাচ্ছি। এরপর তিনি কলব্যাক করে জানান, নিয়ামতপুরে কোন এক মাঠ পরিদর্শনে গেছেন তিনি। এ করোনার সময়ে তার কর্ম    এলাকার বাইরে যেতে পারেনা এবং জেলায় আসলে আমি তো জানবো। ১৫/০৪/২০২১ইং

...
MD. Ruhul Amin SK(SJB:E409)
Mobile : 01745458382

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন
01868974512

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ