+

ভাষানটেক থানার অজ্ঞাতনামা হত্যা মামলার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন ও আসামী গ্রেফতার

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ৯ দিন ৬ ঘন্টা ১০ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 405
...

ভাষানটেক থানার অজ্ঞাতনামা হত্যা  মামলার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন ও  আসামী গ্রেফতার 

মোঃ রিপন হাওলাদার ঃ 

গত ৩১-০৩-২০২১খ্রিঃ দিবাগত রাত এসআই/মোঃ সাইফুল ইসলাম মিরপুর ১৪ নম্বর এলাকায় মোবাইল টহল ডিউটি করাকালীন সময় সকাল আনুমানিক ০৬:৩০ ঘটিকায় মিরপুর ১৪ নম্বর ঢাকা ডেন্টাল কলেজের ইমারজেন্সি গেইটের পাশে দেয়াল ঘেষে রাস্তার উপর একটি কাটুনে লাশ দেখে (ওসি) মোঃ দেলোয়ার হোসেনকে সংবাদ দিলে (ওসি) তাৎক্ষনিক পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ শফিকুল ইসলাম সহ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি তাৎক্ষনিকভাবে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করিলে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (পল্লবী জোন), অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (পল্লবী জোন) এবং উপ-পুলিশ কমিশনার (মিরপুর বিভাগ) ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পরবর্তীতে মৃত ভিকটিম অজ্ঞাতনামা মহিলার আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়। মৃত ভিকটিমের পরিবারের সদস্যদের সংবাদ দিলে ভিকটিমের মা সাহানুর @ সানু (৫৫) থানায় এসে তার মেয়ের ছবি দেখে শনাক্ত করে। ভিকটিমের মা সাহানুর @ সানু (৫৫), স্বামী-মৃত ইসমাইল হোসেন, সাং-পরানগঞ্জ, থানা-ভোলা সদর, জেলা-ভোলা, এ/পি-রোড নং-৩৮, ব্লক-ট, মিরপুর-৬, বারেকের বস্তি, ঝিলপাড়, থানা-রুপনগর, ঢাকা থানায় এজাহার দায়ের করে, বাদীর মেয়ে নাজমা বেগম (৩৪) গত ৩১-০৩-২০২১খ্রিঃ বিকাল অনুমান ০৪:৩০ ঘটিকার সময় বাসা হইতে বের হয়ে যায় আর ফিরে আসে নাই এবং তার মোবাইল বন্ধ পায়।গত ০১-০৪-২০২১ খ্রিঃ বেলা অনুমান ০২:৩০ ঘটিকার সময় রুপনগর থানার পুলিশ বাদীকে জানান যে, তার মেয়ে নাজমা বেগম (৩৪) কে ভাষানটেক থানাধীন মিরপুর ১৪ নম্বর ঢাকা ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালের ২নং গেটের দক্ষিণ পাশে প্রাচীর ঘেষে রাস্তার উপর বস্তা বন্দি কার্টুনের ভিতর পরে আছে। বাদীর ধারণা তার মেয়েকে অজ্ঞাতনামা কে বা কাহারা গত ৩১-০৩-২০২১খ্রিঃ বিকাল অনুমান ০৪:৩০ ঘটিকার পর হইতে ০১-০৪-২০২১খ্রিঃ সকাল ০৭:৩০ ঘটিকার মধ্যে যে কোন সময় হত্যা করে ভাষানটেক থানাধীন মিরপুর ১৪ নম্বর ঢাকা ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালের ২নং গেটের দক্ষিণ পাশে প্রাচীর ঘেষে রাস্তার উপর কার্টুনের ভিতর বস্তা বন্দি করে ফেলে রেখে যায়।ঘটনার প্রেক্ষিতে ভাষানটেক থানার মামলা নং-০১, তরিখ-০১-০৪-২০২১খ্রিঃ, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড রুজু করা হয়।
 
 ঘটনার রহস্য উদঘাটনঃ
 লাশের কাটুনের গায়ে একটি মোবাইল নম্বর পেয়ে আধুনিক প্রযুক্ত ব্যবহার কারী সংশ্লিষ্টরা জানতে পারে উক্ত নম্বরটি কুষ্টিয়া জেলা মিরপুর থানা এলাকায় অবস্থান করিতেছে। তাৎক্ষনিকভাবে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ ক্রমে ভাষানটেক থানার একটি টিম সেখানে গিয়ে কাটুনে দেওয়া নম্বরের ব্যবহার কারী ফিরোজ আল আনামকে কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর থানা এলাকা হইতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। তার দেওয়া তথ্যমতে মিরপুর মডেল থানাধীন পশ্চিম কাজীপাড়া বসুন্ধারা রোডস্থ তাদের অনলাইন ব্যবসা মেঘা এশিয়া স্কাইশপ অফিস, যাহার বাড়ী নং-৬৪৫/২/বি/১, রুম নং-৪০২ এ অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। উক্ত ঠিকানার সামনের বাড়ীর সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করিয়া দেখা যায় রাত অনুমান ০৯ :২০ ঘটিকার দিকে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে বাসার ভিতরে প্রবেশ করে। পরবর্তীতে দেখা যায় এর কিছু সময় পর অনুমান ১০ :৩০ ঘটিকার সময় প্রবেশকৃত ছেলেটি একটি কাটুন কাদে করে নিয়ে এসে রিক্সায় তুলে রিক্সা নিয়ে চলে যায়। উক্ত ফুটেজ ফিরোজকে দেখাইলে সে জানায় প্রবেশকৃত ছেলেটি তার অনলাইল ব্যবসার ডেলিভারী বয় এবং তার নাম  রিপন। তখন রিপনের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করিয়া আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঢাকার মোহাম্মাদপুর থানাধীণ আসাদ গেইট এলাকা থেকে ইং-০৪-০৪-২০২১খ্রিঃ সন্ধা অনুমান ১৮ :৪৫ ঘটিকার দিকে আটক করিয়া থানায় নিয়ে আসা হয়। আটককৃত ব্যক্তিকেজিজ্ঞাসাবাদ করিলে হত্যার দায় স্বীকার করে।
 
 আসামী জানায় সে অনলাইনে মেগা এসিয়া স্কাইসপ অনলাইন ব্যবসার ডেলিভারীর কাজ করে। গত ৩১-০৩-২০২১খ্রিঃ, রাত অনুমান ০৮:০০ ঘটিকার সময় মিরপুর-১০ নম্বর মাল ডেলিভারী দিয়ে যাওয়ার সময় ফুটওভার ব্রীজের উপর নাজমা বেগম (৩৪) তাকে বাসায় যাওয়ার প্রস্তাব দিলে সে জানতে চায় ক টাকা লাগবে? নাজমা জানায় ৫০০/-(পাঁচশত) টাকা লাগবে। আসামী আবু জিয়াদ রিপন তাকে ৪০০/- (চারশত) টাকা দিব বললে সে রাজি হয়। পরে নাজমা রিপনের সাথে বাসা নং-৬৪৫/২/বি/১, রুম নং-৪০২, পশ্চিম কাজীপাড়া, থানা-মিরপুর মডেল, ঢাকায যায়। বাসায় আর কেউ ছিল না। সেখানে রাত অনুমান রাত ০৯:৩০ এর পর ভিকটিম নাজমার সাথে ০২ (দুই) বার শারীরিক সম্পর্কে করে। পরে নাজমা চলে যেতে চাইলে আসামী তাকে ৫০০/-(পাঁচশত) টাকা দেয়। কিন্তু নাজমা ৫০০/- না নিয়ে তার কাছে ১,৫০,০০০/- দাবী করে। টাকা না দিলে তিনি থানায় গিয়ে  মামলা করিবে বলে বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদান করে এবং ব্লাকমেল করতে থাকে। আসামী তখন উত্তেজিত হয়ে নাজমার গলা চেপে ধরে একপর্যায়ে ভিকটিম নামজা মারা যায়। আসামী লাশটিকে লুকানোর জন্য লাশ বস্তা বন্দি করে কাটুনের ভিতরে বরে কসটেপ দিয়ে পেচিয়ে পারসেলে মত করে। এরপর বাসা থেকে বের হয়ে একটি রিক্সা ডেকে নিয়ে বলে মিরপুর ১৪ নম্বরে কিছু বই ডেলিভারী দিকে হবে। রিক্সাওয়ালা ৭০ (সত্তর) টাকা ভাড়া চায়। আসামী লাশ ভর্তি কাটুনটি নিজের কাঁধে করে নিয়ে এসে রিক্সায় রাখে। রিক্সায় উঠে মিরপুর ১৪ নম্বর ডেন্টাল কলেজের দিকে যাইতে বলে। ডেন্টাল কলেজের ইমারজেন্সী গেটের সামনে ফাঁকা জায়গায় দেয়াল ঘেষে কাটুন নামাতে বলে এবং রিক্সাওয়ালাকে বলে  এখানে তার লোক আসবে। রিক্সাওয়ালা ভাড়ার টাকা নিয়ে চলে যায়। তারপর আসামী এদিক ওদিক তাকিয়ে কোন লোকজন না দেখে লাশ ভর্তি কাটুনটি রাতেই ফেলে রেখে চলে যায়। 

 উদ্ধারকৃত মালামালের বিবরণঃ ১। ০১ (এক) জোড়া প্লাস্টিকের স্যান্ডেল, ২। একটি ভিজিটিং কার্ড, যাহার গায়ে এসএম শাহ আলম মাহমুদ লেখা রয়েছে, ৩। ০১ (এক) টি খাকি রংয়ের কাগজের কাটুন, যাহার গায়ে সাদা কাগজে লাগানো BH/FWE/MCHEDI, SOHAG-০১৬১০-৫৮২০২০ লেখা আছে, ৪। ০১ (এক) টি সাদা প্লাস্টিকের বস্তা, ৫। ০১ (এক) টি হালকা বেগুনী রংয়ের ওড়না, ৬। ০১ (এক) টি লাল কালো শপিং ব্যাগ, ৭। সাদা প্লাস্টিক কসপেট, ৮। সাদা প্লাস্টিক, ৯। একটি বেগুনী রংয়ের সালোয়ার, ১

...
Md Ripon Howlader(SJB:E122)
Mobile : 01988625536

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন
01868974512

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ