+

একজন রক্তের ফেরিওয়ালা শাওন ইসলাম এর গল্প

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ২৯ দিন ৩ ঘন্টা ৩৩ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 4595
...

মোহাম্মদ আস্সাদুজ্জামান শাকিল 
স্টাফ রিপোটারঃ

“মরনের পরেও যদি মানুষের উপকার করা যায় করব, কবর না দিয়ে মোরে পাঠিয়ে দিও চিকিৎসা মহা বিদ্যালয়ে”শাওন ইসলাম"

‘মনের ভয় দূর করুন, স্বেচ্ছায় রক্তদান করুন’ স্লোগানকে সামনে রেখে’রক্তদানে উৎসাহ প্রদান ও রক্ত সংগ্রহ কাজে সেচ্ছায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে এক মহানুভবতার নজির স্থাপন করেছেন চট্টগ্রাম হাটহাজারী উপজেলা শাওন ইসলাম। রক্ত দিন জীবন বাঁচান এই মূলমন্ত্র হৃদয়ে ধারণ করে তিনি এ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

চট্টগ্রাম জেলায়,ফটিকছড়ি তকিরহাট ,আব্দুল্লাপুর এলাকায় ওনার জন্ম বিবাহিত জীবন হাটহাজারী উপজেলা মির্জাপুর ইউনিয়নে।তিনি বর্তমানে রক্ত কণিকা বাংলাদেশ ইসলামপুর ব্লাড ব‍্যাংক ,পাশাপাশি বিডি ক্লিন হাটহাজারী উপজেলায় কাজ করে যাচ্ছেন। 

আমি বলছি এক রক্ত যোদ্ধার কথা। নিয়মিত রক্তদাতা। রক্ত প্রয়োজন, এমন কথা শুনলে সে অস্থির হয়ে যায় রক্ত যোগাড় করে দিতে। চার ভাই বোনের মধ্যে তৃতীয় শাওন । তিনি ছোট থেকে স্বেচ্ছাসেবী দের ভালোবাসতেন ,এবং নিজে ও বড় হয়ে  বিভিন্নভাবে দক্ষতা ও সফলতা দেখিয়েছেন। মিষ্টভাষী ও ভদ্র। নিজ এলাকায় তাকে সবাই খুব পছন্দ করে। অন্যকে সাহায্য করতে কখনো দ্বিতীয়বার চিন্তা করেন না। 

কালের পরিবর্তে আজ রক্তের ফেরিওয়ালা শাওন ইসলাম  ‘রক্ত ভান্ডার’ হয়েছে অনেক সমৃদ্ধ, রক্ত দানে ফেরিয়ে গেছে শত শত ব্যাগ। যাতে উপকৃত হয়েছেন অনেক চেনা-জানার পাশাপাশি শত শত অজানা ব্যক্তিও। সৃষ্টিকর্তার করুণায় নতুন করে জীবন ফিরে পেয়েছেন কত-শত রোগী। যার পেছনে রয়েছে রক্তের ফেরিওয়ালা শাওন এর অপরিসীম অবদান। কি রাত, কি দিন কারোও রক্তের প্রয়োজনে কেউ কোন সমস্যায় থাকলে এর সমাধান মানে শাওন। আর শাওনও কাউকে নিরাশ করতো না, যে কোন ভাবেই শাওন তার কাছে সাহায্য চাওয়া সেই ব্যক্তিটিকে রোগীর প্রয়োজনীয় গ্রুপের রক্ত মিলিয়ে দিবেই দিবে।

নিজের ব্যক্তিগত মোবাইল হাতে শাওন সব সময় রক্তের খুঁজে ও রক্ত দানে উৎসাহিত করতে একজন সচেতন নাগরিক। মানুষের রক্তের  গ্রুপ জানা, বিপদে থাকা মানুষকে সাহায্য করতে রক্ত দানে উৎসাহিত করে (শাওন ) দিনের বেশির ভাগ সময় কেটে যায়। প্রথম দিকে স্বেচ্ছা ফ্রি রক্ত দিলেও, বতর্মানে শাওন এক্সচেইঞ্জ সিস্টেমের মাধ্যমে রক্ত দেয়। মানে হল- শাওন এখন কোন রোগীকে নিজে বা সংগ্রহ করে রক্ত দিলে, সেই এক ব্যাগ রক্তের বিনিময়ে সেই রোগী কিংবা রোগীর কোন আত্মীয়-স্বজনদের কাছ থেকে প্রতিশ্রুতি আদায় করে নেয় যে পরবর্তিতে অন্য কারও রক্তের প্রয়োজন হলে তারাও এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে অন্য কোন রোগীকেও সাহায্য করবেন।

ওই প্রতিশ্রুতি আদায়ের কারণ হিসেবে রক্তের ফেরিওয়ালা শাওন ইসলাম জানায়, বেশ কয়েকবছর এই কাজে জরিত আছি ইনশাআল্লাহ থাকবো,।নিজে ৯ বার রক্ত দান করেছি, নিজের অসুস্থতার জন্য ৩ বছর রক্ত দান করা হয়নি,ইনশাআল্লাহ যতদিন বাচবো ,রক্ত দান করে যাবো, কোনো রোগীর রক্ত প্রয়োজন হলে সঙ্গে সঙ্গে স্বেচ্ছায় রক্তের ব্যবস্থা করে থাকি। কেউ রক্ত দান করতে চাইলে অথবা কারো ডোনার প্রয়োজন হলে  দুজনেরই রক্তের গ্রুপ, নাম ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর নোটবুকে লিখে রাখি। পরে কারো রক্তের প্রয়োজন হলে ওই লিস্ট অনুযায়ী আগ্রহী রক্তদাতাদের সহযোগীতায় স্বেচ্ছায় রক্তদানে উৎসাহ দেই। এতে করে ওই রোগীদের জীবন বাঁচে।আমাদের সমাজে বেশির ভাগ মানুষই রক্ত দিয়ে ভয় পায়। এই ভয় থেকেই নিজের আত্মীয়- স্বজন কেও রক্ত দেওয়া থেকে বিরত থাকেন। আর আমি (শাওন ) মানুষের এই ভয়কে দূর করার জন্যই বিপদের সময় রক্ত দেই তবে কৌশলে তার/তাদের (অন্য রোগী) কাছ থেকে পরবর্তি সময়ে স্বেচ্ছায় রক্ত দানের প্রতিশ্রুতি আদায় করি, যাতে করে সমাজে স্বেচ্ছায় রক্ত দানকারী ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। আমাদের সমাজে স্বেচ্ছায় রক্ত দানকারী ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধি ফেলে কেউ আর রক্তের অভাবে অকালে মারা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, রক্তদান ও সংগ্রহ করে মানুষের জীবন বাঁচানোতেই আমার তৃপ্তি। যতোদিন বাঁচবো ততোদিন রক্তদান করে মানুষের উপকার করে যাবো।বার বার পাগল উপাধি পেয়েছি, মানুষের কাছে, তবুও পাগলামী ছাড়তে পারিনি!আমি হিরো হতে চাই, কিন্ত সেটা সিনেমা বা নাটকের নয়, অসাহয় মানুষের হিরো, রক্তদানের হিরো!রক্তদানের কাজের জন্য পেয়েছি, মানুষের ভালবাসা, , স্নেহ,  এখন আমাকে সবাই রক্তের ফেরিওয়ালী বলেই চিনে।

...
Md. Asaduzzaman Shakil(SJB:E501)
Mobile : 01829053021

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , hr@sorejominbarta.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ