১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১২:০৫

আ.লীগ নেতার মেয়ের বাল্যবিয়ে, অতিথি মন্ত্রী!

সরকার ও প্রশাসন যখন বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার তখন লক্ষ্মীপুরে দশম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন খোদ এক আওয়ামী লীগ নেতা। আর এ বিয়েতে অতিথি হিসেবে থাকার কথা রয়েছে সরকারেরই এক মন্ত্রীর।

জানা গেছে, আজ (৩১ আগস্ট) শুক্রবার বিয়ের তারিখ ঠিক হয়েছে দশম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তারের। সুমাইয়া সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিনের মেয়ে। সে প্রতাপগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। তার রোল নং-৭৩। ওই ইউনিয়নের শেখপুর গ্রামের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা রয়েছে।

শাহজাহান কামাল লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য।

এদিকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ বাল্যবিয়ে রোধে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছেন।

বুধবার (২৯ আগস্ট) চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ, সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, চন্দ্রগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে এ চিঠি দেয়া হয়। এছাড়া ওই চিঠির অনুলিপি দেয়া হয় জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা পুলিশ সুপারকেও।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার শেখপুর গ্রামের নুরুল আমিনের মেয়ে স্কুলছাত্রী সুমাইয়া আক্তারের সঙ্গে টাইলস মিস্ত্রি কাউছারের শুক্রবার বিয়ের দিন ধার্য করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে মেয়ের বাড়িতে ৫ শতাধিক লোকের খাবারের প্রস্তুতি নেয়া হয়। বর কাউছার চরশাহী গ্রামের তরক আলী বেপারী বাড়ির মো. মন্তাজ মিয়ার ছেলে।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামালের লক্ষ্মীপুরে তিনদিনের সফরসূচি পাঠানো হয়। সেখানে উল্লেখ রয়েছে, শুক্রবার দুপুরে আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আমিনের মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন মন্ত্রী।

মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম পাটওয়ারী স্বাক্ষরিত ওই সফরসূচি এ প্রতিবেদকের হাতে রয়েছে।

প্রতাপগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান বলেন, সুমাইয়ার বিয়ের বিষয়টি আমাদেরকে কেউ জানায়নি। এখন খোঁজ-খবর নেব।

তবে মেয়ের বাবা আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আমিন জানান, সুমাইয়া গত বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ফলাফল খারাপ করেছে। এখন জম্মনিবন্ধনে তার বয়স ১৮ এর কাছাকাছি। সবার সঙ্গে কথা বলেছি।

চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম বাবুল বলেন, ইউএনওর চিঠি আমি পেয়েছি। মেয়ের বাড়িতে গ্রাম-পুলিশ পাঠিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছি। এর ব্যত্যয় ঘটলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।

জানতে চাইলে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন,আমি বাইরে ছিলাম। এ বিষয়ে কোনো চিঠি পাইনি। তবে খোঁজ-খবর নেব।

সদরের ইউএনও মোহাম্মদ শাজাহান আলী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রথমে আমি বাল্যবিয়ের খবরটি পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছি।

বাল্যবিয়েতে অতিথি থাকার বিষয়ে বক্তব্য জানতে গত রাতে বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামালের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন নম্বরে একাধিকবার কল করলেও সাড়া মেলেনি।

প্রকাশ :  আগস্ট ৩১, ২০১৮ ৬:২২ পূর্বাহ্ণ