১৮ই এপ্রিল, ২০১৯ ইং | ৫ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ৮:২১

গোয়াইনঘাটে ফসলি জমি ধংস করে ভূমিখেকোদের ফিসারি বানিজ্য ।

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলের চৈলাখৈল সপ্তম খন্ড মৌজার বাওন হাওরে ফসলি খাস জমি অবৈধ দখল করে ফিসারি বানিজ্যে মেতেছেন বিএনপি ও জামাত পন্থিরা এমন অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার সত্যতা যাছাই করতে গতকাল হাওর পরিদর্শনে গেলে দেখা যায় প্রায় কয়েক বিঘা ফসলি জমির ধান কর্তন করে অবৈধ এক্সেভেটর মেশিন দিয়ে এক দল লোক ফিসারি বানাচ্ছেন।তথ্য নিয়ে জানা যায় যে এখানে অনেক সংখ্যালঘু পরিবারের জমিও রেহাই পাচ্ছেনা।তাদের অভিযোগ ০৯ ফ্রেব্রুয়ারি হটাৎ রাতের বেলা বিকট যানের শব্দ পেয়ে জমিতে গিয়ে দেখেন যে, কোন ভূমিখেখু কুচক্রী মহল অবৈধ এক্সেভেটর মেশিন দিয়ে জমির সবুজ সদ্য লাগানো ধান কর্তন করে ফিসারি তৈরী করছেন। এমতবস্থায় তারা বাধা দিতে গেলে তাদের প্রাননাশের হুমকিও দেওয়া হয়।স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায় এই কুচক্রী মহল বিএনপি ও জামাতপন্তি লোক।এবিষয়ে আলাপকালে এক মুরব্বী জানান প্রশাসন অবগত থাকলেও এখনো কোন প্রকার একশনে যান নি।কুচক্রীরা হলেন পূর্ব জাফলংয়ের কাজিম উদ্দিন, পিতা আমির আলী ;আক্কাস আলী, পিতা জলু মিয়া;রমজান আলী, পিতা তসলিম উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন, পিতা মৃত রসুন আলী, হালিম, পিতা ইনসান,মহরম আলী, পিতা রমজান আলী ও রেজাউল করিম,পিতা আব্দুল হাসিম। স্থানীয়দের দাবী অতি দ্রুত ফসলি জমি রক্ষায় অবৈধ ভূমি খেকোদের যেন আইনের আওতায় আনা হয়।

প্রকাশ :  ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ ৪:২৩ অপরাহ্ণ