২০শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৬ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৩:০২

হাটহাজারীতে আল্লামা তৈয়্যব শাহ (রঃ) স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
হাটহাজারী উপজেলার গুমানমর্দ্দন ইউনিয়নের পেশকারহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে আল্লামা তৈয়্যব শাহ (রঃ)’র স্মৃতি বৃত্তি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৩শে ডিসেম্বর রবিবার সকাল দশঘটিকা হতে এ বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় পরীক্ষার হলরুম পরিদর্শন করেন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মুজিবুর রহমান,পেশকারহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ সুজা উদ্দীন কুতুবী ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি এসএম নুরুল আবছার,পেশকারহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মোঃ শফিউল আলম,বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আমিনুর রহমান দারুন,ইউপি সদস্য হোসেন,সরকারহাট মিতালী ক্লাবের সভাপতি সাকের উল্লাহ চৌধুরী,মির্জাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ গোলাম মওলা,”আল্লামা তৈয়্যব শাহ (রহঃ) স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার” এর সাবেক সভাপতি মোঃ জয়নাল আবেদীন ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার, বর্তমান কার্যকরি কমিটির সহ-সভাপতি ডাঃ মোঃ বোরহান উদ্দীন ও সদস্য মোঃ রাশেদুল ইসলাম,জাহেদুল আলম মানিক,রোকন উদ্দীন,আব্দুল কাদের,মিজানুর রহমান,বেলাল উদ্দীন,আব্দুল্লাহ আল মাসুদ,খোরশেদুল আলম,হাবিব উল্লাহ,নাঈম উদ্দিন,মনির উদ্দীন,মিজান,টুটুল,আরমান,কামরুলসহ অনেকেই।

প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত আল্লামা তৈয়্যব শাহ(রঃ) স্মৃতি বৃত্তিতে ৩০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তৃতীয় থেকে সপ্তম শ্রেণির ৪শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

ইউপি চেয়ারম্যানসহ আগত অতিথিবৃন্দ ও আল্লামা তৈয়্যব শাহ(রঃ) স্মৃতি সংসদরে কর্মকর্তারাও কেন্দ্র পরিদর্শন করে এত শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ দেখে অবাক হন এবং শিক্ষার প্রতি মানুষের অগ্রসর ভূমিকা দেখে আল্লাহ্ কাছে শুকরিয়া জানান।

শারমিন,তারেক,ওমর ফারুক,ইসমত জাহানসহ অনেক শিক্ষার্থীরা এ প্রতিবেদককে জানান, খুব আনন্দ লেগেছে,পরীক্ষাও ভাল হয়েছে। মনে হচ্ছে আমরা যেন পিএসসি ও জেএসসি কিংবা বার্ষিক পরীক্ষা দিচ্ছি। পরীক্ষার পর্যবেক্ষক সঞ্চয় চৌধুরী নীল,আবুল ফয়েজ ও রাশেল উদ্দীন মুন্না বলেন,এ প্রতিষ্ঠান একটি শিক্ষা উন্নয়নমূলক সংগঠন। প্রথমবারের এত শিক্ষার্থীর উপস্থিতি দেখে অবাক হয়েছি।

সংগঠনের সভাপতি মৌলানা বশির উদ্দীন ও বৃত্তি পরীক্ষা কমিটির আহবায়ক জোনায়েদ আরাফাত বলেছেন, জাতির উন্নয়নের মূল
চাবিকাঠি হলো পড়ালেখা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বাইরে বিভিন্ন প্রথিতযশা লেখকদের বই পড়লে অতিরিক্ত জ্ঞানার্জন করা সম্ভব। তাছাড়াও শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষাভীতি দুর হয়। প্রতি বছর এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এমন প্রত্যাশা আমাদের রয়েছে।

প্রকাশ :  ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮ ১:০০ অপরাহ্ণ