১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:১৩

নারায়ণগঞ্জের নতুন এসপি হারুন

আলোচিত পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ হারুন অর রশীদকে নারায়ণগঞ্জের নতুন পুলিশ সুপারের (এসপি) দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে।

রোববার সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে এই দায়িত্ব দেয়া হয়।

প্রজ্ঞাপনে বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি কার্যালয়ের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. আজাদ মিয়াকে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে এবং নারায়ণগঞ্জের প্রত্যাহারকৃত এসপি মো. আনিসুর রহমানকে পুলিশ অধিদফতরে সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) পদে বদলি করা হয়েছে।

হারুন অর রশীদ সর্বশেষ গাজীপুর জেলার নতুন এসপি ছিলেন। সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) সংযুক্ত করা হয়।

এর আগে ২৭ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) আনিসুর রহমানকে প্রত্যাহার করে ইসি। তার বিরুদ্ধে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট আপত্তি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেছিল।

সদ্য যোগদানকৃত এসপি হারুন অর রশীদ ২০১৪ সালের ২৪ আগস্ট পুলিশ সুপার হিসেবে গাজীপুরে যোগদান করেছিলেন। ২০১৬ সালে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের তৃতীয় দফায় গাজীপুর সদর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়ায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ওই বছরের ২১ এপ্রিল এসপি হারুন অর রশিদকে গাজীপুর থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর প্রত্যাহারের আদেশ তুলে নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে ওই বছর ৩ মে গাজীপুরের পুলিশ সুপার পদে হিসেবে পুনর্বহাল করেন। দুই দফা মিলিয়ে ৪ বছর গাজীপুরে ছিলেন তিনি।

এসপি হারুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজ বিজ্ঞানে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করে ২০তম বিসিএস-এর মাধ্যমে ২০০১ সালে এএসপি হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। ডিএমপিতে থাকাকালীন সময় বিএনপি নেতা জয়নুল আবেদিন ফারুককে মারধরের ঘটনায় আলোচিত হয়েছিলেন তিনি।

২০১১ সালের ৬ জুলাই জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে হারুনের মারধরে রক্তাক্ত ও আহত হন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক। তখন তিনি তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ছিলেন।

এছাড়াও সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ইসিতে বিএনপির দেয়া ৯২ জন ‘দলবাজ’ কর্মকর্তার মধ্যে হারুনেরও নাম ছিল।

প্রকাশ :  ডিসেম্বর ২, ২০১৮ ৬:৫৩ অপরাহ্ণ