১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:০০

ধানমণ্ডি এলাকায় বেড়েছে ইভটিজিং

স্টাফ রিপোর্টার :

ইভটিজিং বর্তমান সমাজে মারাত্মক ব্যাধি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আজকাল নারীদের রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্রেও ইভ টিজিংয়ের শিকার হতে হচ্ছে। ইভ টিজিংয়ের শিকার হয়ে অনেক মেয়ে ঘর থেকে বের হওয়া বন্ধ বা আত্মহনন পর্যন্ত করে। মাঝে ইভটিজিং রোধে সরকার কঠোর অবস্থান নিয়েছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে সামাজিক ঐকমত্য দেখা যাচ্ছে না।

মূলত সামাজিক ও রাজনৈতিক অস্থিরতা, রাজনৈতিক ভাবে সন্ত্রাসীদের পৃষ্ঠপোষকতা, অশিক্ষা, কুশিক্ষা, বেকারত্বের হার বৃদ্ধি, আইনের যথেচ্ছ ব্যবহার ও সুষ্ঠু প্রয়োগ না করাসহ নানা কারণে ইভটিজিং বেড়ে চলেছে। ইভটিজাররা অপরাধ করেও বারবার পার পেয়ে যাওয়ার কারণে আবারও ইভ টিজিংয়ে জড়িয়ে পড়ে। এ জন্য আমাদের সামাজিক অব্যবস্থা অনেকাংশে দায়ী।

কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না ইভটিজিং। ঢাকাসহ সারাদেশে আগের চেয়ে বেড়ে গেছে বখাটেদের উৎপাত। সামাজিক আন্দোলন চালিয়েও সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। স্কুল-কলেজে গোয়েন্দা নজরদারির কথা থাকলেও তা বাস্তবে নেই বললেই চলে। বখাটেদের গ্রেফতার করার পর রাজনৈতিক নেতারা হস্তক্ষেপ করায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থার করার কিছুই থাকছে না বলে অভিযোগ রয়েছে।

সম্প্রতি রাজধানীর ধানমণ্ডি এলাকায় মনির চৌধুরী ও তার দলের জঘন্যতা ও হয়রানি ব্যাপক ভাবে বেড়েছে। বাসিন্দাদের জোরপূর্বক ভয় দেখিয়ে নীরব থাকতে বলা হচ্ছে। যারা বেশির ভাগ সময়ই হয়রানি ও অপমান করে বেড়াচ্ছে। স্থানীয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয় না। স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান মেয়েরা প্রতিনিয়ত হয়রানি ভোগ করছে, গত ৫ বছরে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে যাচ্ছে মেয়েদের এসিড আক্রমণের ঘটনাও ঘটেছে। এ রকম ঘটনা ক্রমে বাড়তে থাকায় ধানমণ্ডির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সচেতন মহল ইভটিজিং রোধে জোর দাবি জানায়।

প্রকাশ :  অক্টোবর ১০, ২০১৮ ৪:৪১ পূর্বাহ্ণ