১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৬:৫৫

কে হচ্ছেন পাবনা-১ আসনের নৌকার মাঝি

সাঁথিয়া-বেড়া (পাবনা) সংবাদদাতা :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা প্রস্তুতি হাতে নিয়েছে পাবনা-১ আসনের আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা।গনসংযোগ থেকে শুরু করে যোগ দিচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক অনুষ্ঠানে।চলতি বছরের ২৭ শে ডিসেম্বর সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন।তারই ধারাবাহিকতায় পাবনা-১ আসনে চলছে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌরঝাপ।চলছে কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ।কে হচ্ছেন পাবনা-১ আসনের নৌকার মাঝি?এই প্রশ্নটাই এখন দোলা খাচ্ছে এই আসনের তৃনমুল নেতা ও সাধারন মানুষ।বেড়া উপজেলার ৫ টি ইউনিয়ন ১ টি পৌরসভা এবং সাঁথিয়া উপজেলার ১০ টি ইউনিয়ন ১টি পৌরসভা এবং আতাইকুলা একাংশ নিয়ে গঠিত পাবনা-১ আসন।জেলার ৫ টি আসনের মধ্যে সবচাইতে গুরুত্বপুর্ন আসন হল এটি।স্বাধীনতার পর থেকে এ আসনে যেই নির্বাচিত হয়েছেন তাকেই সরকারের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় রাখা হয়েছে।স্বাধীনতার ৪৮ বছরে বেড়া-সাঁথিয়ার মানুষ ৯ জন মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী পেয়েছেন। বর্তমান মহাজোট সরকারের আমলে আওয়ামীলীগ থেকে পরপর দুইবার শামসুল হক টুকু পার্লামেন্টারী সদস্য হয়েছেন।দুর্নীতি-স্বেচ্ছা-চারিতা এবং প্রকৃত আওয়ামীলীগকে কোনঠাসা করে বি,এন,পি জামায়াতের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলার কারনে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বলে মনে করেন এখানকার সকল শ্রেনীপেশার মানুষ।এতে করে আওয়ামীলীগের বড় একাংশ অখুশি।এদিকে সাবেক তথ্য-প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডঃ আবু সাইদকে ফিরে পেতে চায় পাবনাবাসী তথা ৬৮/১ আসনের সাধারন জনগন ও তৃনমুল নেতারা।অন্যদিকে সাঁথিয়া থেকে তিনবার নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্জ্ব নিজাম উদ্দিন ও সাবেক ছাত্রনেতা মোশাররফ হোসেন স্কাই মনোনয়ন পেতে উপর মহলে যোগাযোগ রাখছেন। নির্বাচনী এলাকা-১ আসনে প্রার্থীরা নিজেদের ছবি সংবলিত বিলবোর্ড ফেস্টুন লাগিয়ে নিজেদের প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন।যতবারই পাবনা-১ আসনে জরিপ চালানো হয়েছে ততবারই সাবেক তথ্য-প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডঃ আবু সাইদের নাম উঠে এসেছে।তিনি বঙ্গবন্ধুর সহোচর ও ৭২ এর অন্যতম সংবিধান প্রনেতা।বেড়া-সাঁথিয়া আওয়ামীলীগের জন্মই হয়েছে তার হাতে।ক্লিন ইমেজের এই নেতাকে ফিরে পেতে লাখো মানুষ প্রতিক্ষার প্রহর গুনছে। শামসুল হক টুকু সমর্থক ও সাবেক তথ্য-প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডঃ আবু সাইদের সমর্থকদের মধ্যে প্রতিনিয়ত চলছে বাকযুদ্ধ। এ যেন বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তান যুদ্ধ। পাবনা-১ আসন ঘুরে সাধারন মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা সৎ যোগ্য প্রার্থীকে বেছে নিতে চান এবং তারা পরিবর্তন চান।বেড়া উপজেলার কয়েজন আওয়ামীলীগ-যুবলীগ নেতা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বলেন,নির্বাচনকে সামনে রেখে অনেকেই নমিনেশন পাইতে উপর মহলে লবিং চালাচ্ছেন।মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে না পারলেও টাকার বিনিময়ে নমিনেশন কিনতে বেশ জোরালো ভাবেই তদবির চালাচ্ছেন।এ আসনে আওয়ামীলিগের যোগ্য প্রার্থী যদি আমরা খুঁজতে যাই সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডঃ আবু সাইদের বিকল্প কাউকে দেখিনা।সাঁথিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ-যুবলীগ নেতারা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, আমাদের এই আসনে নিজেদের মধ্যে দুইটি গ্রুপ তৈরি হয়েছে।এখানে গ্রুপিং থাকলে হবে না থাকতে হবে একতা।যেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন মুখ দেখে নয় আমলনামা দেখে মনোনয়ন দেয়া হবে।এই আসনে জয়ী হতে হলে এইখানে আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় হেভিওয়েট প্রার্থী ছাড়া অন্য কোন বিকল্প নাই।আওয়ামীলীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সঠিক যোগ্য গ্রহনযোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তিকে মনোনয়ন দিতে ও পাবনা-১আসনে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সদয় দৃষ্টিদানে অনুরোধ জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

প্রকাশ :  অক্টোবর ২, ২০১৮ ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ