+

বগুড়ার গাবতলীতে অবৈধভাবে কেনা ২৪বস্তা সরকারী চাল পাচারকালে উদ্ধার

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ২৫ দিন ২১ ঘন্টা ৫৭ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1415
...

বগুড়া প্রতিনিধিঃ   ২৯সেপ্টেম্বর  মঙ্গলবার বগুড়ার গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়নের সাহাবাসপুর হতে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক পরিত্যক্ত অবস্থায়  ২৪বস্তা সরকারী ১০টাকা কেজি দরের চাল উদ্ধার করেছে। এ  ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। একাধিকসূত্র জানিয়েছে,  মঙ্গলবার সকালে উপজেলার নেপালতলী কেন্দ্রে ডিলার সাইফুল ইসলাম খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় হত দরিদ্রদের অনুকুলে বরাদ্দ হওয়া ১০টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করছিলেন। কিন্তু স্থানীয় কদমতলী এলাকার গোবিন্দ নামের অসাধু এক চাতাল মালিক সুুফলভোগীদের কাছ থেকে ২৪বস্তা চাল ক্রয় করেন। এ চালগুলো দুই ভ্যানযোগে কদমতলী নিয়ে যাওয়ার পথে সাহাবাসপুর ব্রেইলী ব্রীজের নিকট পৌঁছালে সাংবাদিকদের কবলে পড়ে। সাংবাদিকরা ওই সরকারী চালের বস্তা ও ভ্যানচালকদের ছবি তুলতে থাকলে ভ্যান চালকরা ভয়ে চালের বস্তা ফেলে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে ওই সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পেয়ে গাবতলীর ইউএনও মোছাঃ রওনক জাহান ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত) শাহানশাহ হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় চালগুলো উদ্ধার করেন। এ ব্যাপারে চাল বিক্রির ডিলার সাইফুল ইসলাম বলেন, কার্ডধারী হতদরিদ্রদের মাঝে ১০টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হয়েছে। উত্তোলনের পর কে, কার কাছে এই সরকারী চাল বিক্রি করেছে-তা আমার জানা নেই। তবে একটিসূত্র জানিয়েছে, ডিলার সাইফুল ইসলামের যোগসাজসে গোবিন্দ চন্দ্র এই সরকারী চালগুলো কিনেছে। গোবিন্দ চন্দ্র দীর্ঘ চার বছর আগে থেকে এভাবে সরকারী চাল অবৈধভাবে কিনে আসছে। ট্যাগ অফিসার সুখানপুকুর খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা হাসিবুল হাসান বলেন, সরকারী কাজে ব্যস্ত থাকায় তিনি চাল বিতরণ কেন্দ্রে যেতে পারেননি। তবে ৩০কেজি ওজনের ২৪বস্তা চাল পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। এ ব্যাপারে ইউএনও মোছাঃ রওনক জাহান স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, চালগুলো কারা বিক্রি করেছে এবং কে কিনেছে-তাদের উভয়ের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে গতকাল গাবতলীর কাগইল ইউনিয়নের দড়িপাড়ায় খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় হতদরিদ্রদের অনুকূলে বরাদ্দ হওয়া ১০টাকা কেজি দরের সরকারী চাল বিক্রি করা নিয়ে কিছু অনিয়ম নিয়ে তুমুল হট্টোগোল হয়। খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিন ও  ইউএনও রওনক জাহান দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন। ডিলার ও কার্ডধারীদের মধ্যে তুচ্ছ এক ঘটনায় ভুল বুঝাবুঝির জন্য কিছুটা বিশৃঙ্খলা পরিবেশের সৃষ্টি হয়।   

...
MD. Nur Nobi Rahman(SJB:E077)
Mobile : 01711717015

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন
01868974512

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ