+

বগুড়ায় পুলিশের ৫ ঘন্টা কৌশল অভিযানে অন্তসত্বা স্ত্রীসহ স্বামী কে উদ্ধার

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ১৬ দিন ০ ঘন্টা ১৫ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1585
...

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার ধুনটে পুলিশের ৫ ঘন্টা কৌশল অভিযানে অন্তসত্বা স্ত্রী রহিমা বেগম ও তার স্বামী পলাশ প্রামানিক কে উদ্ধার করেছে পুলিশ বাহিনীর চৌকস দল। সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় তাদের কে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নেয়া হয়।

সরজমিনে জানা যায়, প্রায় ১২ বছর আগে ধুনট উপজেলার মাজবাড়ী গ্রামের দুলাল প্রামানিকের ছেলে পলাশ প্রামানিকের সাথে একই উপজেলার নিমগাছী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক জিল্লার রহমানের মেয়ে রহিমা বেগমের বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবনে ঝগড়া কলহ লেগেই থাকতো। দাম্পত্য জীবনে ৪ বছরের মাথায় রহিমা বেগমের কোল জুড়ে আসে পুত্র সন্তান নীবর। বর্তমানের ওই সন্তানের বয়স ৮ বছর। স্বামী পলাশ প্রামানিক অলসতার কারনে সংসারের ঘানি টানতে না পারায় সংসারের হাল ধরতে স্ত্রী রহিমা বেগম প্রায় ৩ বছর আগে কর্মের তাগিদে সৌদি আরবে যান। সেখানে  দুই বছর কাজ করে গত বছর ২০১৯ সালে দেশে ফিরে আসেন রহিমা বেগম। দেশে আসার পর স্ত্রী রহিমা বেগম সংসারের হাল ধরতে স্বামী পলাশ প্রমানিক কে গবাদি পশুর ব্যবসা করার জন্য কিছু পুঁজি দেয়। কিন্তু পলাশের ব্যবসায়িক কাজে মনোযোগ না থাকায় পুঁজিতে ঘাটতি পড়তে থাকে। এ নিয়ে তাদের দাম্পত্য জীবনে আরো কলহ বিবাদ বেড়ে যায়।
রহিমা বেগম ৫ মাসের অন্তসত্বা হওয়ায় বিভিন্ন প্রকার পিঠা ও ফল নিয়ে ৯ আগষ্ট ২০২০ রবিবার বিকালে মেয়েকে দেখতে জামাই বাড়ী আসেন পলাশের শশুর ও শাশুরী। দাম্পত্য বিষয়াদি নিয়ে শশুর-শাশুরীর সাথে জামাই পলাশের কথা কাটাকাটি হয়। এর এক পর্যায়ে শাশুরীকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে পলাশ। জামাইয়ের কথায় কষ্ট পেয়ে তাৎক্ষনিক শাশুরী তার বাড়ী ত্যাগ করে চলে যায়। মা কে গালি দেওয়ায় স্বামী পলাশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে রহিমা বেগম। ফলে তাদের ভিতরে দাম্পত্য কলহ আরো বেড়ে যায়।

স্বামী স্ত্রীর ওই কলহের জের ধরে ঘটনার দিন সোমবার সকাল থেকে স্বামী পলাশ প্রামানিক তার স্ত্রী রহিমাকে আবারো গালি গালাজ করতে থাকে। এতে স্ত্রী রহিমা বেগম ক্ষুব্ধ হয়ে বাবার বাড়ি চলে যাবো বলে উক্তি প্রকাশ করে। এ রকম কলহের এক পর্যায়ে স্বামী পলাশ ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে স্ত্রী রহিমাকে বেঁধে রাখে। পরে স্ত্রীর গলায় ধারালো অস্ত্র ধরে “তোকে মেরে আমি আত্মহত্যা করবো” বলে জোরে জোরে বলতে থাকে। ওই সময় স্ত্রী রহিমার চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে উদ্ধার করার চেষ্টা করে। কিন্তু পলাশ দরজা না খোলায় উদ্ধার করতে ব্যার্থ হলে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দেয়ে।
খবর পেয়ে ধুনট থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা সঙ্গী ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। পরে অবস্থার প্রেক্ষিতে  ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুর রশীদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) গাজিউর রহমান। পরে পুলিশের চৌকস দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘরের বাইরে থেকে পলাশ কে বুঝাতে থাকে এবং পলাশ কে বাইরে আসতে বলে। তখন “কেউ ঘরের কাছে আসবেন না, আসলে মেরে ফেলে দিব” বলে পুলিশের চৌকস দলকে হুমকি দেয় পলাশ।

প্রায় ৫ ঘন্টা কথা বলার একপর্যায়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয়দের সহযোগীতায় পলাশের চাচা শফিকুল ইসলাম কৌশল করে সীঁধ কেটে ঘরের ভিতরে ঢুকে ও একই সময়ে পুলিশ প্রশাসন ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে জিম্মী দশা থেকে অন্তসত্ত্বা স্ত্রী রহিমা বেগম ও তার পাষান্ড স্বামী আত্মহত্যার হুমকি প্রদানকারী পলাশকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে রাতেই থানা হেফাযতে নিয়ে আসে।
বগুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুর রশীদ জানান, প্রায় ৫ ঘন্টা কৌশল অভিযানের পর ৫ মাসের অন্তসত্ত্বা স্ত্রী ও তার স্বামীকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। বগুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  (শেরপুর সার্কেল) গাজিউর রহমান জানান, আমরা অত্যান্ত দক্ষতার সাথে স্থানীয়দের সহযোগিতায় উদ্ধার অভিযান চালিয়ে সফল হয়েছি। ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিন্ধু বালা জানান, উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের মাঝবাড়ী গ্রামে নিজ ঘরে জিম্মিদশা থেকে অন্তসত্বা স্ত্রী ও জিম্মিকারী স্বামীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। এ উদ্ধারের বিষয়টির আইনি পদক্ষেপ গুলো প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

...
MD. Nur Nobi Rahman(SJB:E077)
Mobile : 01711717015

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ