+

ছাত্রলীগ নেতা তানিমের খোলা চিঠির জবাবে কক্সবাজার এসপির বক্তব্য মুহুর্তেই ভাইরাল ।

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ১৪ দিন ১৫ ঘন্টা ০ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1040
...

ছাত্রলীগ নেতা তানিমের খোলা চিঠির জবাবে কক্সবাজার এসপির বক্তব্য মুহুর্তেই ভাইরাল ।

স্টাফ রিপোর্টার :


গত ২৭ জুলাই কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা মোরশেদ হোসাইন তানিম তার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মাদকের বিরুদ্ধে তথা মাদক কারবারির পক্ষে যারা সুপারিশ করে তাদেরকে আইনের আওতায় আনার লক্ষ্যে আইজিপি বরাবর কক্সবাজার পুলিশ সুপার কে মাধ্যম করে একটি স্ট্যাটাস প্রদান করেন। যা কক্সবাজার সহ সারাদেশের বিভিন্ন অনলাইন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। সেই স্ট্যাটাস এর উপর ভিত্তি করে আজ রাত আনুমানিক ৯টার সময় কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসাইন তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে একটি  স্ট্যাটাস প্রদান করেন। স্ট্যাটাসটি পোস্ট করার পর  বেশ কয়েক মিনিটের মধ্যে ফেসবুকে শেয়ার,কপি এবং শতশত মন্তব্য আসতে শুরু হয়। মুহুর্তের মধ্যে স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়। যা নিম্নে হুবহু তুলে ধরা হলো।

এবি,এম মাসুদ হোসাইন কক্সবাজার।

জনাব মোরশেদ হোসাইন তামিম, সাধারণ সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত), বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কক্সবাজার জেলা শাখা গত ২৭ জুলাই-২০২০ আমাদের মাননীয় আইজিপি স‍্যার বরাবর একটি খোলা চিঠি লিখেছেন এবং সেখানে মাধ্যম হিসেবে আমার নাম উল্লেখ করেছেন। তার চিঠির মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল মাদক ব‍্যবসায়ীদের পক্ষে যারা আমাদের কাছে তদবির করেন তাদের নাম পরিচয় প্রকাশ করা এবং তাদেরও মাদক ব্যবসায়ীদের মত সমান অপরাধী বিবেচনা করে কঠোরভাবে আইনের আওতায় আনা। মাদক নিয়ে আপনার উদ্বেগ এবং এর বিরুদ্ধে আপনার দৃঢ় অবস্থান অবশ্যই প্রশংসনীয়। আপনার মত তরুণ নেতৃত্বের কাছ থেকে এরকম বক্তব্য আমাদের তরুণ প্রজন্মকে দারুনভাবে উৎসাহিত করবে। আপনার অবগতির জন্য বলছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালের মে মাসে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। উক্ত ঘোষণার পর থেকে কক্সবাজার জেলা পুলিশ মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। আমাদের বর্তমান আইজিপি স‍্যার যোগদানের পর এই অভিযান আরো নতুন মাত্রা পেয়েছে। স‍্যার দেশকে মাদকমুক্ত করতে বদ্ধপরিকর। বিভিন্ন গণমাধ্যমে স‍্যারের দেওয়া বক্তব্য এবং আমাদের নিজস্ব চ‍্যানেলে আসা স‍্যারের নির্দেশনায় সেই কঠোর মনোভাবের বহিপ্রকাশ রয়েছে। কোন ইয়াবা ব‍্যবসায়ীকে গ্রেফতারের পর তার সাথে পাওয়া আলামতের পরিমাণ, তার মাদক ব‍্যবসার ইতিহাস যাচাই বাছাই করে আইনগত ব‍্যবস্হা গ্রহণ করা হয়। বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ আসামিদের ক্ষেত্রে নিজেরা আলোচনা করে আমাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এক্ষেত্রে কে কি তদবির করল তা বিবেচনায় নেওয়া হয় না। পুলিশ কি ব‍্যবস্হা নেয় এই চিন্তায় আসামীর পরিবার যখন উদবিগ্ন থাকে তখন কিছু বাটপার ও টাউট পরিবারের দূর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে পুলিশের নাম ভাঙিয়ে স্বার্থসিদ্ধির চেষ্টা করে।
কক্সবাজারের মাননীয় সংসদ সদস্যসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজ মাদকের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ। আমরা অত্যন্ত সৌভাগ্যবান যে, আমাদের অভিভাবক মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয় হলেন আমাদের অনুপ্রেরণা। কক্সবাজারে যোগদানের আগ মূহূর্তে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে দেখা করতে গেলে মাদক ব‍্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে তিনি যে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছিলেন আজ পর্যন্ত মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়কে এ বিষয়ে কখনো নমনীয় হতে দেখিনি। এটাই আমাদের সবচেয়ে বেশি সাহস যোগায়। মাঝেমধ্যে দুই একজন বিভিন্ন মাধ‍্যমে কৌশলে মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে তদবিরকারক পাঠালেও কোন কাজ হয়নি। তিনি ইয়াবা ব‍্যবসায়ীদের পক্ষে তদবিরকারীদের অপমান করে বিদায় করেছেন। জনাব মোরশেদ হোসাইন তামিমসহ যারা ইয়াবা ব‍্যবসাকে ঘৃণা করেন- তাদের আশ্বস্ত করতে চাই এটা নিয়ে কোনো তদবিরে কাজ হবে না। এই জেলায় যোগদানের প্রথম দিকে তদবিরবাজদের যন্ত্রণায় রাতে ঘুমাতে পারতাম না। এখন আর তারা আমাকে তেমন ডিসটার্ব করেন না । কারণ তারা জানেন এতে কাজ হয়না। আমরা সকল আসামীর গুরুত্ব অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। কারো তদবিরের কারণে কোনো ইয়াবা ব‍্যবসায়ীকে কোনো ছাড় দেওয়া হয় না। এটা নিয়ে ধান্দাবাজরা এলাকায় বিভিন্ন কথা রটিয়ে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করে থাকে। ধান্দাবাজরা আসামিকে থানা থেকে ছাড়িয়ে আনা, মামলা দূর্বল করে দেওয়া বা ক্রসফায়ার থেকে বাচিয়ে দেওয়া ইত্যাদি কাল্পনিক আশ্বাস দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করে থাকে। আর গ্রেফতারকৃত ব‍্যক্তিকে নিয়ে আমাদের সাথে অনেকেই কথা বলতেই পারেন। তার অর্থ এই নয় যে আমরা তার কথা মোতাবেক ইয়াবা ব‍্যবসায়ীকে সুবিধা দিব।

একটা কথা স্পষ্ট বলতে চাই-কোন তদবিরবাজ যদি ইয়াবা ব‍্যবসায়ীকে সুবিধা দেওয়ার কথা বলে বা পুলিশের নাম ব‍্যবহার করে টাকা পয়সা লেনদেনের কথা বলে অথবা আমাদের কোন পুলিশ সদস্য লেনদেনের মাধ্যমে সুবিধা দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে কথা বলে তাহলে তাদের কথা কোনোভাবেই বিশ্বাস করবেন না। তাদের সাথে টাকা লেনদেন করার আগে বা পরে যাচাই করুন। কৌশলে প্রমাণ রেখে আমাদের জানালে আপনাকে শতভাগ নিশ্চয়তা দিতে পারি যে, আপনার দেওয়া টাকা আপনি ফেরত পাবেন এবং তদবিরবাজ বা সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস‍্যের বিরুদ্ধে এই জন্য কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমরা যে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেওয়ার জন্য সংকল্পবদ্ধ হয়েছি সেই লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য সকল প্রচেষ্টা অব‍্যাহত থাকবে। আমাদের সকল সহকর্মীর সমান সাহস বা সক্ষমতা হয়তো নাই কিন্তু তাই বলে আমরা থেমে থাকবো না। সচেতন নাগরিকদের নিয়ে এগিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ।

...
Sharmin Sultana Mitu(SJB: E019)
Mobile : 01713003162

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ