গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত অনলাইন নিবন্ধন নাম্বার ৬৮

মাদকে কোটিপতি পারুলী বেগম, বনে গেছে বিত্তশালী, ডাক নাম বড় আপা।

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ২৭ দিন ১৪ ঘন্টা ১৬ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 635
...

টংগী প্রতিনিধিঃ দেশব্যাপী মাদকের কারবার, অপরাধ কর্মকাণ্ড ও অপরাধীদের বসবাসের অভয়ারণ্য হিসেবে সু-পরিচিত গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গীর এরশাদনগর। ইতিপূর্বে এখানকার অনেক চিহ্নিত মাদক কারবারিদের নামসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া ‘টঙ্গীর এরশাদনগর এখন মাদকের স্বর্গরাজ্য’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর এলাকার মানুষ মাদকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভাবে প্রতিবাদ করতে থাকে।এখন সকলের মনে একটাই প্রশ্ন ঘোরপাক খাচ্ছে। কে এই মাদক সম্রাজ্যের সম্রাজ্ঞী। প্রতিবারের অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে সেই একটি মাত্র নাম পারুল আক্তার ওরফে পারুলী। অনুসন্ধানে জানা যায়, বর্তমান প্রেক্ষাপটে মাদক অভিযান করতে গেলে মাদক কারবারিরা কৌশল করে আইন শৃঙ্খলা বাহীনীর কর্মকর্তাদের উপর অর্থ আত্মসাৎসহ মিথ্যা অপবাদ দেয়। এছাড়া গায়ে হাত তোলার ঘটনাও ঘটে। যার ফলে গোয়েন্দা তৎপরতা কমে গেছে। অনুসন্ধানে দেখা যায়, মাদক কারবারিদের আশ্রয় ও প্রশ্রয়ে ব্যাপক ভুমিকা পালন করছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগী সোর্সেরা। আবার মাদক কারবারিদের কোন্দলে পরে অনেক সোর্সের প্রাণহানীর ঘটনাও টঙ্গীতে নতুন নয়। সোর্সেরা অনেকে হয়েছে হামলা ও মামলার আসামী। কিছুদিন আগেও মাদক সম্রাজ্ঞী পারুলীর করা মামলার শিকার হয়েছেন রফিকুল ইসলাম বাবু, কাজী জীবন, নোয়াব আলী, পাকিস্তানি সাহেদসহ অনেকেই। এলাকাবাসীর দাবি এইটা মাদক সম্রাজ্য নিয়ন্ত্রনের নতুন কৌশল সোর্সেরা মামলার ভয়ে এলাকায় না আসলে দেধারছে মাদক বিক্রি করতে পারবে। কিছুদিন আগে মাদক সম্রাজ্ঞী পারুলীর মাদক কারবারের তথ্য ফাঁস করায় এক যুবককে ধরে এনে বেধড়ক মারধর করার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সরেজমিন এরশাদনগর এলাকার ৮টি ব্লকের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে মাদক কারবারিদের যে স্পট পাওয়া গেছে তাদের নাম ইতিপূর্বে প্রকাশিত হয়েছে। বিভিন্ন ভাবে অনুসন্ধান করে বারবারই বেরিয়ে আসছে ১নং ব্লকের বাসিন্দা ইয়াবা ও গাজার ডিলার হিসেবে শীর্ষে থাকা মানিক মিয়ার স্ত্রী পারুল আক্তারের নাম। এলাকার সবার কাছে পারুলী নামে সু-পরিচিত এই মাদক সম্রাজ্ঞী। পারুলী টঙ্গী পূর্ব থানার মামলা নং-৪৮, তারিখ-১৮,০৭,২০১৯ইং, ধারা-১৪৩/১৮৬/১৮৭/৩৩২/ ৩৩৩/ ৩৫৩/ ১১৪। *টঙ্গী থানার মামলা নং-(২০) তাং-১২-০৪-২০১৭ইং, ধারা-১৯৯০সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯(১)এর ৯(খ)/২৫। *টঙ্গী থানার মামলা নং (০৮) তাং- ০৬-০৫-২০১৭ইং, ধারা ধারা-১৯৯০সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯(১) এর ৯(খ)/২৫। *টঙ্গী থানার মামলা নং-(০৫) তাং-২০-০৮-২০১৫ইং, ধারা-১৯৯০সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯(১)এর ৯(ক)/২৫। *টঙ্গী থানার মামলা নং-(৫৯) তাং-২১-০৬-২০১৮ইং, ধারা-১৯৯০সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯(১)এর ৯(ক)/২৫। *টঙ্গী থানার মামলা নং-(৪৬) তাং-১১-০৭-২০১৮ইং, ধারা-১৯৯০সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ১৯(১)এর ৯(খ)/২৫সহ একাধীক মামলার এজাহার নামীয় আসামী। পারুলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধীক মামলাসহ র‍্যাব কার্যালয় ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)এ রয়েছে নানা অভিযোগ। মাদকের টাকায় পারুলী এরশাদনগর এলাকায় গড়ে তুলেছে বিশাল সম্রাজ্য। এরশাদ নগরে রয়েছে পারুলীর ৩টি বাড়ী, মাদকের এই সম্রাজ্ঞী এরশাদনগরে যে বাড়িতে বসবাস করে সে বাড়ীতে প্রবেশ করলে মনে হবে রাজপ্রাসাদ। প্রায় ৬থেকে ৭ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মাণ করেছে আলিশান গেইট। বেড়িবাঁধের পাশে অবৈধভাবে গড়ে তুলেছে পল্ট্রি ফার্ম, খাপাড়া এলাকায় রয়েছে আনুমানিক দেড় কোটি টাকা মুল্যের একটি বাড়ি, কামাল দেওয়ানের কাছ থেকে ক্রয় করেছে ৫ কাঠা জমি, হোসেন মার্কেট ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলি বিল্ডিং এ ছিল ২টি ফ্লাট যার একটি বিক্রি করে দিয়েছে। এছাড়া গাছা এলাকায় রয়েছে দুটি প্লট। এছাড়া নামে বেনামে পারুলের রয়েছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ। পারুলীর আত্মীয় স্বজনদের বেশীর ভাগ লোকই মাদকের উপর নির্ভরশীল। অনেকে নামে মাত্র চায়ের দোকান দিয়ে রেখেছে। দাম্পত্য জীবনে পারুলী ৩নং ব্লকের জাহাঙ্গীর, আবুল মিয়াসহ একাধিক বিবাহ বিচ্ছেদের পর বিল্লালের ভাই মানিকের সঙ্গে সংসার করছে।পারুলীর বাড়িতে সিসি ক্যামেরা থাকলেও মাদকের চালান আসার পর সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে মাদক ঢুকানো হয়। মাদকের চালান রিসিভ করে পারুলীর বড় বোন পারভীন। মাদক কারবারে পারুলের স্বামী মানিক, তার মা জুলেখা বেগম ও বড় বোন পারভিনসহ সকলেই দীর্ঘদিন যাবত ইয়াবা ও গাজার কারবার করে আসছে। তার নেতৃত্বে মাদকের কারবার করছে সোর্স খলিলের স্ত্রী লিপি, ইবরা মিয়ার মেয়ে রিতা, আক্তার ওরফে (পাগলা আক্তার) রাজা ও তার স্ত্রী আলো, ফারুক ও তার স্ত্রী নিপা, পিংকি, পারুলীর মামাতো ভাই শাহ্ আলম, সালমা আক্তার (মন্টু), আকাশ, হাসি, মুন্না, মুন্নি, খলিল, জীবন,পারভেজ, আবুল, মোশারফ, মিরাজ, দাইত্তা জলিল, রমজান আলী বাবু (৯৯ বাবু)। খালেদা ভাণ্ডারী ও আলামিন, মতি ও বিপ্লব, ইবু মিয়াঁ, জামাই লিটন, পুরি মাসুদের ভাগিনা সাজন। জমির, রুবেল (পাতা রুবেল), ফিরোজ, হনুফা, কালুর বউ স্মৃতি আক্তার, হারুন, সুমন, আমজাদ, লালু (৩৫), কালু (৪০), জাবেদ, জসিম, আকাশ (২৫), ভাণ্ডারী হোসেন, শান্তা মিয়া ও নাজু বেগম, ইয়াবা ও বিয়ার বিক্রয় করছে তারা গাজী, বিল্লাল, লোকমান, সুমন, আলমগীর, মৃত আওলাদের স্ত্রী সাথী, লাইলী, শামসুন্নাহার, হযরত, মইজুদ্দিন, লিটু ও তার ছেলে সোহেল, জুয়েল, শরীফের মেয়ের জামাই হুমায়ুন, জামাল, মাসুদ। এদের অনেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় নানা অভিযোগ ও একাধিক মামলা রয়েছে। এরশাদনগর থেকে মাদক, সন্ত্রাস নির্মূলে গত ২৪জুন শুক্রবার বাদ জুম্মা স্থানীয় মসজিদের মুসল্লি ও এলাকাবাসী সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল করে। এসময় মিছিলে অংশগ্রহণ করা এলাকাবাসী জানায়, মাদক কারবারে কেউ বাধা দিতে গেলে তাকে পড়তে হয় হুমকির মুখে। মাদক বিক্রিতে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে যুবসমাজ, তাদের দ্রুত প্রতিকার না করা গেলে এরশাদনগর যুবসমাজ পুরোপুরি ধ্বংসের পথে চলে যাবে, তাই তাদেরকে দ্রুত প্রতিহত করতে আমরা সকলে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। বর্তমানে দেশে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্যের বিস্তার সর্বত্র উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে।

...
Maruf Ahammed
01640583862

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ