+

পৃথিবীর বাইরে অবশ্যই রয়েছে বুদ্ধিমান প্রাণী

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ২৬ দিন ১৯ ঘন্টা ২৯ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1115
...

 

সব জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের দাবি ''আমরা বিশেষ কেউ নই। বহির্বিশ্বে এমন অসংখ্য সভ্যতা রয়েছে।''
এই ব্রহ্মাণ্ডে কি কেবল পৃথিবীতেই রয়েছে প্রাণের চিহ্ন? মানুষই জগতের একমাত্র বুদ্ধিমান প্রাণী? এমন অহং একেবারেই অর্থহীন। পৃথিবী ছাড়াও বহু গ্রহেই রয়েছে বুদ্ধিমান সভ্যতা। অন্য গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব সম্পর্কে নানা দাবি গত কয়েক দশক ধরে বারবার শোনা গিয়েছে। ভিনগ্রহীদের যানের পৃথিবীর উপর দিয়ে চক্কর মারার দাবি থেকে শুরু করে আরও নানা কথা শোনা গিয়েছে। তবে সেই সব দাবির সঙ্গে অ্যাভি লোবের দাবিকে মিশিয়ে ফেলা যাবে না। কেননা ইনি হার্ভার্ডের জ্যোতির্বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান হিসেবে সব থেকে বেশিদিন পদে থাকার রেকর্ড গড়ে ফেলেছেন। স্টিফেন হকিংয়ের মতো বহু কিংবদন্তি জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। এমন অভিজ্ঞ ও সিনিয়র এক অধ্যাপকের দাবি নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ।
ঠিক কী বলেছেন প্রবীণ জ্যোতির্বিজ্ঞানী? তাঁর নতুন বইয়ে অ্যাভির স্পষ্ট দাবি, ”আমরা বিশেষ কেউ নই। বহির্বিশ্বে এমন অসংখ্য সভ্যতা রয়েছে। আমাদের কেবল তাদের খুঁজে বের করতে হবে।” সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে তাঁর বই ‘দ্য ফার্স্ট সাইন অফ ইন্টেলিজেন্ট লাইফ বিয়ন্ড আর্থ’। তাতেই ৫৮ বছরের বিজ্ঞানী ব্যাখ্যা করেছেন নিজের মতকে।
কিন্তু কী করে তিনি এত নিশ্চিত হচ্ছেন? আসলে ২০১৭ সালের অক্টোবরে আমাদের সৌরজগতে ঢুকে পড়েছিল এক মহাজাগতিক বস্তু। যার নাম ‘ওউমুয়ামুয়া’। অত্যন্ত দ্রুতগতিতে সেটি পার হয়ে গিয়েছিল তার পথ। অদৃশ্য হওয়া পর্যন্ত তার গতিবিধির দিকে নজর রেখেছিলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। তাঁদের মতে, এটি গ্রহাণু। কিন্তু যে নানা আকারের গ্রহাণুকে নিয়মিতই পৃথিবীর আশপাশ দিয়ে চলে যেতে দেখা যায়, তাদের থেকে অনেক আলাদা এটি। বিজ্ঞানীরা চমকে উঠে দেখেছিলেন, সূর্যের থেকে দূরে যাওয়ার পরে আচমকাই গতি বাড়িয়েছিল ‘ওউমুয়ামুয়া’। যেন তাকে দূর থেকে কেউ নিয়ন্ত্রণ করছিল।
কেবল গতি বাড়াই নয়, অধ্যাপক অ্যাভির মতে ক্রমশ উজ্জ্বল হয়ে উঠতে দেখা গিয়েছিল ওই রহস্যময় মহাজাগতিক বস্তুকে। তাঁর মতে, এটি একটি কৃত্রিম বস্তু। সাধারণ গ্রহাণুর থেকে এর চরিত্র একেবারেই আলাদা। আর এর থেকেই সৌরজগতের বাইরে বুদ্ধিমান সভ্যতার আন্দাজ পেতে চেষ্টা করেছেন তিনি। এমন দাবি অবশ্য তিনি আগেও করেছেন। এর আগে ২০১৮ সালেও তিনি এমন দাবি করেছিলেন। এবার নতুন বইতেও ফের সেই দাবিতেই সরব হলেন প্রবীণ বিজ্ঞানী। সৃস্টি কর্তার সব রহস্য জানা মানুষের পক্ষে সম্ভব নায়, পৃথিবীর মত আরো বহু গ্রহ নক্ষত্র সৃস্টি করে রেখেছেন, সেখানে কিছু না কিছু তো অবশ্যই আছে। আল-কুরআনের আরো অনেক আয়াতে ইঙ্গিত প্রদান করা হয়েছে যে- শুধু আমাদের এই পৃথিবীই নয়, অন্য কোন অজানা প্রান্তেও রয়েছে আল্লাহর সৃষ্টি জীব। কিন্তু এর বিপরীতে মহাবিশ্বের কোথাও প্রাণ নেই এরকম কোন বার্তা আল-কুরআনে দেয়নি। আর ৪২ নং সূরার ২৯ নং আয়াত এবং ৬৫ নং সূরার ১২ নং আয়াত ২টি আমাদের কে ১০০% নিশ্চিয়তা প্রদান করে ভিন গ্রহের প্রাণী সম্পর্কে এবং  ৬৫ নং সূরার ১২ নং আয়াতটি আমাদেরকে যে ধারনা দান করে তাহল- “ভিন গ্রহের প্রাণীরা আমাদের মতই বুদ্ধিমান এবং গঠন গত দিক থেকে আমাদের মতই (হতে পারে আমাদের থকেও বেশি) উন্নত ।

পৃথিবীর বাইরের জগৎ নিয়ে পবিত্র কোরআনে সূরা আস শুরা এর ২৯ নং আয়াতে বলা হয় যে আল্লাহ নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডলের সৃষ্টি এবং এদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া জীব সহ সবকিছু সৃষ্টি করেছেন। তিনি যখন ইচ্ছা এদেরকে একত্র করতে সক্ষম।
সুরা তালাক্বের ১২ নং আয়াতে আল্লাহ রাব্বুল আলা-আমিন বলেন, তিনি আল্লাহ যিনি সপ্ত আকাশ সৃষ্টি করেছেন এবং সমসংখ্যক (৭টি) পৃথিবীও সৃষ্টি করেছেন।
এদুটো আয়াত বর্ণনা করলে বোঝা যায় যে মহান সৃষ্টি কর্তার তার সৃষ্টির অপার রহস্যে পৃথিবীর মতোই আরো ৬ টি গ্রহ তৈরি করেছেন যেখানে জীবন আছে ও জীবন ধারনের জন্য সুন্দর পরিবেশ রয়েছে।
সৃষ্টিকর্তা নিঁখুত ভাবে সবকিছু তৈরি করেছেন। তিনি চাইলেই সবকিছু একত্রিত করতে পারেন আবার বিভক্তও করতে পারেন।
মহান আল্লাহ শুধু পৃথিবীর নয় তিনি অজানা এমন আরো অনেক কিছু সৃষ্টি করেছেন যা শতশত বছরের গবেষনা করেও বড় বড় বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করতে পারেনি।
পৃথিবীর বাইরে কোন অজানা গ্রহে তিনি প্রাণ সৃষ্টি করেছেন যার হদিস এখন পর্যন্ত কোন বিজ্ঞানী আবিষ্কার করতে পারেনি।
আল্লাহ ইঙ্গিত দিয়েছেন পৃথিবীর বাইরে আরো ৬ টি গ্রহের যেখানে জীবন ধারণের পরিবেশ আছে সুতরাং বলা যায় এলিয়েন বা ভিন গ্রহে অন্য প্রানীর অস্তিত্য আছে।  তাদের জীবন ধারণের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ আছে।
আল-কুরআনের ৪২ নং সূরার ২৯ নং আয়াত এবং ৬৫ নং সূরার ১২ নং আয়াত ২টি আমাদের কে ১০০% নিশ্চিয়তা প্রদান করে ভিন গ্রহের প্রাণী সম্পর্কে এবং ৬৫ নং সূরার ১২ নং আয়াতে বলা হয়।
ভিন গ্রহের প্রাণীরা আমাদের মতই বুদ্ধিমান হতে পারে আবার গঠনগত দিক থেকে আমাদের মতই উন্নতও হতে পারে বা এরচেয়ে বেশিও হতে পারে।
সুতরাং বলা যায়,এলিয়েন নেই একথা কুরআন কখনো বলেনি বরং জীবন ধারণের জন্য পরিবেশ বিদ্যামান  এমন অনেক পরিবেশের কথাও বলা হয়েছে সেখানে।

...
MD. Shajalal Rana(SJB:E078)
Mobile : 01881715240

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন
01868974512

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ