কাশিয়ানীতে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

news-details
বাংলাদেশ

কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি :
গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে প্রতারণা করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা ফুকরা ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হান্নান শেখের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগীরা। যার প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাব্বির আহমেদ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শুনানীর দিন ধার্য করেছেন।

অভিযোগে প্রকাশ, ইউপি সদস্য হান্নান তার ওয়ার্ডের অর্ধশত দরিদ্র্র পরিবারকে ভিজিডি কার্ড, বিধবা ভাভা, বয়স্ক ভাতা, সরকারি ঘর ও গভীর নলকুপ দেওয়ার কথা বলে প্রত্যেকের কাছ থেকে ২ হাজার থেকে ১৫ হাজার করে টাকা নিয়েছেন। এ সব ভূক্তভোগীরা দিনের পর দিন ইউপি সদস্য হান্নান শেখের পিছে ঘুরেছেন সুবিধা পাওয়ার জন্য। কিন্তু কোন ধরণের সুবিধা দিতে না পারায় ইউপি সদস্য হান্নানের কাছে টাকা ফেরত চাইলে তিনি নানা তালবাহানা করেন। এমনকি অনেক ভূক্তভোগীকে উল্টো হুমকি দিয়েছেন তিনি।

ভূক্তভোগী কাইয়ূম ফকির যুগান্তরকে বলেন, সরকারি ঘর এনে দেওয়ার কথা বলে হান্নান মেম্বার আমার কাছ থেকে ৮ হাজার টাকা নিয়েছেন। আমি ৮ হাজার টাকা সুদে এনে তাকে দিয়ে ১১ মাস সে টাকার সুদ দিয়েছি। অথচ আজও আমার টাকা মেম্বার ফেরত দেয়নি।

এছাড়া ফুকরা ইউনিয়নের সাফলীডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা মো. মকবুল হোসেনকে গভীর নলকুপ দেয়ার কথা বলে সাড়ে ৭ হাজার, হেনা বেগমকে ঘর দেয়ার কথা বলে ১৪ হাজার, মর্জিনা বেগকে ভাতা দেয়ার কথা বলে এক হাজারসহ অর্ধশতাধিক পরিবারের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মো. হান্নান শেখের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘আমিও এক জায়গায় ঘরের জন্য ৮১ হাজার টাকা দিয়েছিলাম। আমার সম্পূর্ণ টাকা মার গেছে। আমি তাই কাউকে বলতে পারছি না।’

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাব্বির আহমেদ অভিযোগ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগের বিষয়ে আগামী বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) আমার অফিসে শোনানীর জন্য নোটিশ দেয়া হয়েছে।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা