সাংবাদিকদের সব দাবি-দাওয়া মেনে নিল এস এ টিভি

news-details
বাংলাদেশ

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ   টানা প্রায় ৩০ ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর সংবাদকর্মীদের তিন দফা দাবি মেনে নিয়েছে এসএ টিভির মালিকপক্ষ। সংবাদকর্মীসহ সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত আসে।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী  এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সাংবাদিকদের তিন দফা দাবি হলো— আন্দোলনকে কেন্দ্র করে এসএ টিভির কোনো সংবাদকর্মীকে ভবিষ্যতে চাকরিচ্যুত করা হবে না; সংবাদকর্মীরা পরবর্তী সময়ে এসএ টিভি ছেড়ে চলে যেতে চাইলে শ্রম আইন অনুযায়ী তাদের সব সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে; এবং এখন থেকে সংবাদকর্মীদের নিয়মিত বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হবে। এছাড়া, যে চার মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে, সেগুলোও ক্রমান্বয়ে পরিশোধ করবে মালিকপক্ষ।

ডিইউজে সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী সারাবাংলাকে বলেন, এসএ টিভির মালিকপক্ষের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনার পর তারা সাংবাদকিদের দাবি-দাওয়া মেনে নিয়েছে। এই আন্দোলনকে ঘিরে সামনে যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা তৈরি করা না হয়, সেজন্য সব সংবাদকবর্মীকে সচেতন থাকতে হবে।

সোহেল হায়দার চৌধুরী জানান, আন্দোলন ঘিরে এসএ টিভির মালিকপক্ষের সঙ্গে সাংবাদিকদের চুক্তি হয়েছে। বিএফইউজে, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শাবান মাহমুদের উপস্থিতিতে এই চুক্তি সই হয়েছে।

এর আগে, সংবাদকর্মীদের অন্যায্যভাবে বরখাস্ত করাসহ নিয়মিত বেতন-ভাতার দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরেই বিক্ষোভ করে আসছিলেন এসএ টিভির সংবাদকর্মীরা। মালিকপক্ষ কোনোভাবেই তাদের দাবি-দাওয়া মেনে নিতে সম্মত না হলে গতকাল মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুর থেকে এসএ টিভির কার্যালয়ে অবস্থান নেন তারা। দুপুর থেকেই সংবাদকর্মীসহ সাংবাদিক নেতারা দফায় দফায় বৈঠকও করেন মালিকপক্ষের সঙ্গে। তবে দাবি-দাওয়া মেনে না নেওয়ায় বিকেলের পর থেকেই বেসরকারি চ্যানেলটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালাউদ্দিন আহমেদকে অবরুদ্ধ করে রাখেন বিক্ষোভকারীরা।

এরপর মঙ্গলবার রাত পেরিয়ে বুধবার সকাল থেকেও সংবাদকর্মীদের বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। এমডি সালাউদ্দিনও অবরুদ্ধ ছিলেন। বুধবার সকাল থেকেও মালিকপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের চেষ্টা হয়। দুপুরের পর থেকে দফায় দফায় বৈঠকের পর সন্ধ্যায় অবশেষে তারা সম্মত হলেন সংবাদকর্মীদের দাবি মেনে নিতে।

এদিকে, বিক্ষোভ করলেও টিভির সম্প্রচার কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে আন্দোলনরত সংবাদকর্মীরা বিভিন্ন শিফটে ভাগ হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাদের সঙ্গে এ আন্দোলনে সংহতি জানিয়েছেন অন্যান্য বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সহকর্মী সাংবাদিকরাও। এছাড়া আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত সাংবাদিকদের আইনিসহ সার্বিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার (বিজেসি)।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা