হাইকোর্টে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ারের ক্ষমা প্রার্থনা

news-details
আইন-আদালত

ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেওয়ার চার মাস পার হলেও আদেশের প্রত্যয়িত অনুলিপি না দেওয়ার ঘটনায় হাইকোর্টে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ানের (র‌্যাবের) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম।

আজ রোববার হাইকোর্টের তলব আদেশে হাজির হয়ে তিনি ক্ষমা চান।

এর আগে গত ১৮ নভেম্বর সারোয়ার আলমকে তলব করেন হাইকোর্ট। ভ্রাম্যমাণ আদালত এক ব্যক্তিকে সাজা দেওয়ার পর চার মাস পার হলেও আদেশের কপি না দেওয়ার ব্যাখ্যা দিতে তাকে তলব করা হয়।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে হাজির হয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন সারওয়ার আলম। র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচলানার জন্য প্রয়োজনীয় জনবল ও সরঞ্জাম দিতেও এ সময় স্বরাষ্ট্র সচিবকে নির্দেশ দেন আদালত।

সারওয়ার আলমের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন আইনজীবী মাসুদ হাসান চৌধুরী পরাগ এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। ক্ষমা প্রার্থনা করে সারওয়ার আলম আদালতকে বলেন, ‘ভবিষ্যতে এ বিষয়ে সতর্ক থাকব।’

সাজা দেওয়ার চার মাস পরও আদেশের কপি দেওয়ার ক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে মো. মিজান মিয়া ১৭ নভেম্বর রিটটি করেছিলেন।

জানা যায়, চলতি বছরের ১৮ জুলাই অভিযান চালিয়ে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত মিজান মিয়াকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের তপু এন্টারপ্রাইজ নামে একটি পশুখাদ্য প্রস্তুতকরণ কারখানার ব্যবস্থাপক মিজান। পরে ওই সাজার আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করার জন্য আদেশের কপি চান। 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরজমিনবার্তা