আমেরিকার 'ইরান-প্রীতি'কে ভণ্ডামি বলে কটাক্ষ রাশিয়ার

news-details
আন্তর্জাতিক

জাখারোভার বক্তব্য, ইরানের উপর আমেরিকার ‘অবৈধ অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার জন্যই তেহরান তেলের দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছে। আর তারই জেরে ইরানে কিছু লোক ভাঙচুর অশান্তিতে লিপ্ত হয়৷ এদিকে মার্কিন সরকার ইরানি জনগণের পাশে থাকার দাবি করছে অথচ ইরানের জনগণের উপর মার্কিন সরকারের ওষুধ ও খাদ্য নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে।

সম্প্রতি মার্কিন বিদেশমন্ত্রী মাইক পম্পেও ইরানের একদল দুষ্কৃতকারীদের সমর্থন জানিয়ে টুইটারে বার্তা দেওয়ায় মার্কিন হস্তক্ষেপকামিতার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তেহরান। মার্কিন গোয়েন্দা-প্রধান পম্পেও বলেছিলেন, ইরানি জাতিকে নতজানু করতে তাদেরকে অবশ্যই ক্ষুধার শিকার করতে হবে৷ ইরানের জনগণের উপর ওয়াশিংটনের সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাকে অর্থনৈতিক সন্ত্রাস বলে উল্লেখ করছেন ইরানের নেতারা৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের মানুষকে ‘সন্ত্রাসী’ অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন। মার্কিন সরকার ইরানের জনপ্রিয় মোসাদ্দেক সরকারকে উৎখাত করেছিল। মার্কিন ইঙ্গিতেই ইরাকে সাদ্দাম ইরানের ওপর চাপিয়ে দেয় ৮ বছরের যুদ্ধ। সন্ত্রাসী মোনাফেক গোষ্ঠীসহ নানা ধরনের সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে লেলিয়ে দেওয়ায় ইরানের উচ্চ পর্যায়ের অনেক নেতাসহ লক্ষাধিক জনগনের মৃত্যু অথবা আহত হয়েছেন৷ ফলে এখন ইরানের জনগণের বন্ধু হবার মার্কিন দাবিকে একেবারে মুরগির প্রতি শিয়ালের প্রশংসার মতই ভণ্ডামি লেগেছে রাশিয়ার৷

মার্কিন বিশেষজ্ঞ মহল ও পত্র-পত্রিকাগুলোও স্বীকার করেছে অতীতের সব মার্কিন সরকারের ইরান-বিদ্বেষী নীতিগুলো ব্যর্থ হয়েছে। ইরানের জনগণ এবং সরকারের প্রতিরোধ ট্রাম্পকেও চরম ব্যর্থতার তিক্ত স্বাদ আস্বাদনে বাধ্য করবে বলে মনে করছে বিভিন্নমহল।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরজমিনবার্তা