দরিদ্র কমার হার কমছে, বাড়ছে প্রবৃদ্ধি

news-details
অর্থনীতি

অর্থনীতি ডেস্ক :

গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা বেড়েছে পঞ্চবার্ষিকী কর্মপরিকল্পনায়। লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নের হারও বেড়েছে। এই বাস্তবায়ন হার বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। অথচ গত ১৮ বছরের মধ্যে দারিদ্র্য বিমোচনের হার বর্তমানে সবচেয়ে কম।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (জ্যেষ্ঠ সচিব) ড.শামসুল আলমের উপস্থাপিত ‘বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট পার্সপেক্টিভস: অ্যাচিভমেন্টস অ্যান্ড চ্যালেঞ্জস’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনের তথ্য বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনটি আজ শনিবার (২৩ নভেম্বর) রাজধানীর নীলক্ষেতে অবস্থিত জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমিতে (এনএপিডি) প্রথম আন্তর্জাতিক পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিষয়ক কনফারেন্সে তুলে ধরেন তিনি।

তাতে দেখা যায়, ২০০০-০৫ সময়ে দারিদ্র্যতা কমার হার ছিল ১ দশমিক ৮ শতাংশ, ২০০৫ থেকে ২০১০ সালে ছিল ১ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১০ থেকে ২০১৬ সময়ে দারিদ্র্যতা কমার হার ১ দশমিক ২ শতাংশ। অর্থাৎ প্রতিনিয়ত দারিদ্র্যতা কমার হার কমছে। আবার ওই প্রতিবেদনের পঞ্চবার্ষিকী কর্মপরিকল্পনায় জাতীয় গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ক্রমাগত বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নের হারও।

প্রতিবেদনের তথ্য মতে, ১৯৭৩-৭৮ প্রথম পঞ্চবার্ষিকী কর্মপরিকল্পনায় গড় প্রবৃদ্ধি বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। যেখানে অর্জন সম্ভব হয়েছিল ৪ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৭২ দশমিক ৭৩ ভাগ। ১৯৭৮-৮০ দ্বি-বার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ দশমকি ৬ শতাংশ। সেখানে অর্জন করা সম্ভব হয়েছে ৩ দশমিক ৫ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৬২ দশমিক ৫০ ভাগ। ১৯৮০-৮৫ দ্বিতীয় পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় লক্ষ্য ছিল ৫ দশমিক ৪ শতাংশ, অর্জন হয়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ, যা লক্ষ্যমাত্রার ৭০ দশমিক ৩৭ ভাগ।
১৯৮৫-৯০ সালের তৃতীয় পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৪ শতাংশ, যেখানে অর্জন হয়েছে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৭০ দশমিক ২৭ ভাগ। ১৯৯০-৯৫ চতুর্থ পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ শতাংশ, যেখানে অর্জন ছিল ৪ দশমিক ২ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৮৪ ভাগ। ১৯৯৭-০২ পঞ্চম পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭ শতাংশ, অর্জন হয়েছে ৫ দশমিক ১ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৭২ দশমিক ৮৬ ভাগ। ২০১১-১৫ ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক কর্মপরিকল্পনায় গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৩ শতাংশ, অর্জন হয়েছে ৬ দশমিক ৩ শতাংশ, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৮৬ দশমিক ৩ ভাগ।

এ দিকে বর্তমানে চলমান আছে সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী কর্মপরিকল্পনা, যা ২০১৫-২০ সালে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এর গড় প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ। ২০১৫ সাল থেকেই বর্তমান সময় পর্যন্ত এর অর্জন সম্ভব হয়েছে ৭ দশমিক ৬০ শতাংশ। অর্থাৎ মূল লক্ষ্যমাত্রার ১০২ দশমিক ১৫ ভাগ হারে অর্জন হচ্ছে লক্ষ্যমাত্রা। যা এর আগে কখনও হয়নি।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরজমিনবার্তা