রাণীনগরে দাপিয়ে চলছে দুই শতাধিক মাটিবাহী ট্রাক্টর

news-details
বাংলাদেশ

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি :

নওগাঁর রাণীনগরে চলতি ইট তৈরির মৌসুমে কৃষি জমি  থেকে মাটি কেটে সড়ক পথে বিভিন্ন ইট ভাটায় চুক্তি ভিত্তিক মাটি পৌঁছে দেওয়ার জন্য রাণীনগর-আত্রাই সড়কসহ উপজেলার অভ্যন্তরীণ সড়কে দিন রাত ২৪ ঘন্টা অবাধে দাপিয়ে চলছে প্রায় দুই শতাধিক মাটিবাহী ট্রাক্টর। নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ কার্যকর স্থানীয় প্রশাসনের জোড়ালো পদক্ষেপের অভাবে অধিকাংশ মাটি বাহী ট্রাক্টর চালকরা বেপরোয়া গতিতে চালানোর কারণে মাঝে মধ্যে ঘটে চলেছে ছোট-বড় দুর্ঘটনাসহ প্রাণহানীর মতো ঘটনা।

ট্রাক্টরের ধাক্কায় গত দুই বছরে স্কুল শিক্ষার্থীসহ বেশ কয়েক জন নিহত হলেও তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় শুধুমাত্র ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে নানা চাপে ফেলে কিছু টাকা দিয়ে মিমাংসার প্রবণতাও দিনদিন বৃদ্ধি পাওয়ায় ট্রাক্টর চালক ও মালিকরা আইনের প্রতি তোয়াক্কা না করে বিরামহীন ভাবে অবৈধ ট্রাক্টার সড়ক পথে চালিয়ে যাচ্ছে।

লাভজনক ব্যবসা হওয়ার কারণে একজনের দেখাদেখি আরেক জনও ট্রাক্টর ব্যবসার দিকে ঝুকে পড়ছে। অবৈধ ট্রাক্টারের বিরুদ্ধে পুলিশী ব্যবস্থা জোরদার করে নিরাপদে সড়কে চলাচলের ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। গত সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা মিটিংয়ে অবৈধ টাক্টর চলাচলের বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। প্রশাসন বলছে খুব শীগগির সড়ক ও পরিবহন আইন কার্যকর করতে অবৈধ যানবাহনসহ বৈধ কাগজপত্র নেই এমন পরিবহনের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করা হবে।
বেশি লাভের আশায় ট্রাক্টর মালিক পক্ষ স্বল্প বেতনে অপ্রাপ্ত বয়স্ক চালককে দিয়ে ট্রাক্টর চালানোর ফলে সড়কে চলাচলরত স্কুলগামী কমলমতি ছাত্র-ছাত্রীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ মাঝে মধ্যে ট্রাক্টরের চাপায় আহত ও নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। চালকদের পেশাগত কোন প্রশিক্ষণ না থাকায় ভ্যান চালক হেলপাররাই ট্রাক্টর মালিকদের ভরসা। যে চালক যত বেশি গতিতে গাড়ি চালিয়ে ইট ভাটায় বেশি মাটি পৌঁছে দিতে পারবে সেই চালককে মালিকরা বেশি পছন্দ করে। পাল্লা দিয়ে গাড়ি চালানোর কারণে বিকট শব্দে শব্দ দূষণে শিশুদেরকে নিয়ে সড়কে হাটা-চলা করতে মারাত্মক ঝুঁকির সম্মুখীন হতে হয়। এই রকম প্রতিযোগীতায় পৃষ্ট হচ্ছে সাধারণ মানুষ ও ছোট-খাটো যানবাহন।
উল্লেখ্য, গত চার বছর ধরে হঠাৎ করে রাণীনগর উপজেলায় ফসলি জমির শ্রেণি পরিবর্তন না করে ভূমি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে ও জমির মালিকদের লোভনীয় অফারের ফাঁদে ফলে এক শ্রেণির মাটি, ইট ও পুকুর খনন ব্যবসায়ীরা এই পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার  বিঘা বিভিন্ন ফসলী জমি পুকুরে পরিণত করেছে। 
রাণীনগর ট্রাক্টর গ্রুপের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল জানান, আমাদের মালিক সমিতির আওতায় প্রায় দেড় শতাধিক  ট্রাক্টার আছে। এ ছাড়াও বাইরের এলাকা থেকে প্রায় ৫০ টির মতো ট্রাক্টর এসে কাজ করছে। নতুন সড়ক আইন কার্যকরী করার লক্ষে ইতি মধ্যে আমরা বৈঠক করেছি। চালক এবং মালিক পক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রকৃত চালক ছাড়া কেউ আর ট্রাক্টর চালাতে পারবে না। সড়কের শৃঙ্খলা ফিরাতে আমরা যথাযথ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। 
রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: জহুরুল হক জানান,  ট্রাক্টরগুলো অবাধ চলাচলের কারণে সদরে এক দিকে যেমন সৃষ্টি হচ্ছে যানজটের অন্য দিকে ছোট-খাটো দুর্ঘটনা লেগেই আছে। শীঘ্রই অবৈধ এই যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করা হবে।

 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরজমিনবার্তা