• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০২০ , চৈত্র - ২৪ , ১৪২৬
ব্রেকিং নিউজ

মাদারগঞ্জের যমুনার তীর রক্ষায় ৫শ ৮৪ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

news-details
বাংলাদেশ

জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার যমুনা নদীর ভয়াবহ ভাঙন থেকে জনবসতি ও ফসলি জমি রক্ষায় বাঁধ নির্মাণের জন্য এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। 

প্রকল্পটি অনুমোদন করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ  জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি।
মাদারগঞ্জ- মেলান্দহ উপজেলাবাসীর প্রাণপ্রিয় নেতা মির্জা আজম এমপি গতবছর ভয়াবহ বন্যায় পরির্দশনে কালে   যমুনা নদীর বাম তীর নির্মাণের দাবি জানান এলাকাবাসী। 
সেই দাবি পূরণের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন মির্জা আজম এমপি। 

অবশেষে মঙ্গলবার (১০ মার্চ) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় যমুনা নদীর বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতায় ৫শ ৮৪ কোটি টাকার প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয় একনেক সভায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
একনেক সভায় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প অনুমোদনের পাশাপাশি জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলাবাসীর জন্যও সুখবর রয়েছে। সভায় অনুমোদন করা হয়েছে ‘জামালপুর জেলাধীন মাদারগঞ্জ উপজেলাধীন বালিজুড়ি ও চরপাকেরদহ এলাকা এবং বগুড়া জেলাধীন সারিয়াকান্দি উপজেলাধীন জামথল এলাকার যমুনা নদীর ভাঙ্গন থেকে তীর রক্ষা প্রকল্প। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৫ শ ৮৪ কোটি টাকা।

মাদারগঞ্জ উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ওবাদুর রহমান বেলাল জানান, যমুনা নদীর ভাঙ্গনের ফলে মাদারগঞ্জ উপজেলার  চরপাকেরদহ, বালিজুড়ি ও জোড়খালিসহ বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষ প্রতিবছর ঘরবাড়ি এবং জমিজমা হারিয়ে নিস্ব হচ্ছে। উপন্তুর বন্যায় গোটা এলাকা প্লাবিত হয়ে কোটি কোটি টাকার ফসলহানি ঘটছে।  
তিনি বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্য  মির্জা আজম মাদারগঞ্জ-মেলান্দহ উপজেলাকে সারাদেশের মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলছেন। তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যেকোন মূল্যে যমুনা নদীর ভাঙ্গন রোধ করা হবে। তার জন্য যমুনা নদীর  তীর রক্ষা প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। পানি উন্নয়ন বোর্ড তাঁর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী নদী ভাঙ্গন রোধ কল্পে একটি ডিবিডি প্রস্তুত করে পাঠায়। প্রকল্পটি মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় উপস্থাপিত এবং অনুমোদিত হয়।
জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আবু সাঈদ বলেন, জামালপুরের মাদারগঞ্জ এবং বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার ৬ দশমিক ২৫ কিলোমিটার যমুনা নদীর পাড়ে প্রতিরক্ষামূলক বাঁধ নির্মাণ করা হবে। বগুড়ার সারিয়াকান্দির অংশটি মূলত যমুনা নদীর পূর্ব পাড়ে এবং মাদারগঞ্জের অংশের সঙ্গে সংযুক্ত।
তিনি বলেন, প্রকল্প এলাকায় জুট টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট, ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্লান্ট, পাট গবেষণা কেন্দ্রসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা রয়েছে। এছাড়াও উপজেলা পরিষদ যমুনা নদীর সন্নিকটে অবস্থিত। উপজেলা পরিষদসহ গুরুত্বপূণ স্থাপনাগুলো নদী ভাঙ্গনের হুমকির মধ্যে রয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে শুধু নদী ভাঙ্গন রোধ হবে না উপরন্তু বিস্তীর্ণ এলাকার ফসল বন্যার ক্ষতি থেকে রক্ষা পাবে।
নির্বাহী প্রকৌশলী আরও বলেন, প্রকল্পটি একনেকের সভায় অনুমোদন পেয়েছে মাননীয় সংসদ সদস্য  মির্জা আজমের অক্লান্ত প্রচেষ্টায়। তাঁর নির্দেশনায় পানি উন্নয়ন বোর্ড  প্রকল্পের ডিবিডি প্রস্তুত করে এবং একনেকের সভায় অনুমোদনের জন্য পাঠায়।
একনেকের সভায় নদীর তীর রক্ষা প্রকল্প অনুমোদিত হওয়ার সংবাদে মাদারগঞ্জ উপজেলাবাসী খুবই আনন্দিত। অনেকে উচ্ছাস প্রকাশ করেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ জানান পাশাপাশি প্রিয় নেতা মির্জা আজম এমপির নিকট কৃতজ্ঞ প্রকাশ করেন । তিনি উদ্যোগ না নিলে এতো বড় একটি প্রকল্প একনেক সভায় অনুমোদন লাভ করতো কিনা সন্দেহ। 
আমরা মাদারগঞ্জবাসী তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ এবং চিরঋণী। 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা