ডিএনসিসি ৪০নং ওয়ার্ডে টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন আতাউর রহমান

news-details
রাজনীতি

মোফাজ্জল হোসেন : প্রচন্ড শীত উপেক্ষা করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা জমে উঠেছে বিভিন্ন ওয়ার্ডে। ঝড় বইছে স্থানীয় চায়ের দোকান ও কফি হাউজ গুলাতে। মেয়র প্রার্থীদের পাশা-পাশি বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠছে নির্বাচনের মাঠ তথা প্রতিটি অলি-গলি। বিশেষ করে ৪০নং ওয়ার্ডে টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন ভাটারা ইউনিয়নের সাবেক সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান মো: আতাউর রহমান।

জানা গেছে,গত ১০ জানুয়ারী ৪০নং ওয়ার্ডে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে ভাটারা ইউনিয়নের সাবেক সফল ও জননন্দিত চেয়ারম্যান মো: আতাউর রহমান টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক পাওয়ার পর তিনি তার কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে ৪০নং ওয়ার্ডের প্রতিটি এলাকায় গণসংযোগ করছেন এবং সাধারণ ভোটারদের কাছে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন। ডিএনসিসির ৪০নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন মহল্লায় গিয়ে সাধারণ ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এ ওয়ার্ডে প্রতীক নয় ব্যক্তি পরিচয় এবং ব্যক্তির ব্যবহারে হবে ভোট। যারা বিগত দিনে জনগনের সেবক হিসেবে সাধারণ মানুষের সাথে ভাল ব্যবহার করেছেন চাহিদা মত বিভিন্ন ধরণের সহযোগীতা করেছেন তারাই মূলত জনগনের ভোটে বিজয়ী হবেন। এ ক্ষেত্রে ভাটারা ইউনিয়নের সাবেক সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান মো: আতাউর রহমান টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীকে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন। কারণ হিসেবে সাধারণ ভোটাররা এ প্রতিবেদকের কাছে উল্লেখ করেছেন, মো: আতাউর রহমান ভাটারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে সকল শ্রেণী পেশা মানুষের কাছে গ্রহণ যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন।

এক সময়ের অবহেলিত নর্দমা যুক্ত চলাচলের অনুপযোগী ভাটারা ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তার উন্নয়ন, উন্নত মানের স্যানিটেশন ব্যবস্থা ও নাগরিক সুযোগ সুবিধা মো: আতাউর রহমানের আমলেই হয়েছে। তাই নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ৪০নং ওয়ার্ডে টিফিন ক্যারিয়ার মার্কার বিজয় সুনিশ্চিত। জানতে চাইলে নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত থাকায় মোবাইল ফোনে ৪০ নং ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও ভাটারা ইউনিয়নের সাবেক সফল ও জনকল্যানে নিবেদিত চেয়ারম্যান মো: আতাউর রহমান এ প্রতিবেদককে বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে টিফিন ক্যারিয়ারের ব্যাপক জনসমর্থনে ঈর্শ্বান্বিত হয়ে সরকার দলীয় প্রার্থী ও তার লোকজন আমাকে ও আমার কর্মী সমর্থকদের বিভিন্ন ধরনের হুমকী দিচ্ছে এবং আমার গণসংযোগে অতর্কিত হামলা চালাচ্ছে। তিনি বলেন, ভাটারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান থাকা কালীন সময় এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি যা এখনো দৃশ্যমান আছে।

এলাকার শান্তি প্রিয় জনগন ও সাধারণ ভোটার আমার পক্ষে রয়েছে। প্রশাসনের সার্বিক সহযোগীতা থাকলে এবং নির্বাচন সুষ্ঠু হলে জনগনের ভোটে টিফিন ক্যারিয়ার  প্রতীকের বিজয় হবে ইনশাআল্লাহ। উল্লেখ্য: নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোশনের নির্বাচন ৩০ জানুয়ারী ২০২০ ইং রোজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮ ঘটিকা থেকে বিকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা