চাটমোহরে অবৈধ ইটভাটা মালিককে জরিমানা

news-details
বাংলাদেশ

বাবু: পাবনার চাটমোহর উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা কামালপুর গ্রামে একটি অবৈধ ইটভাটায় ভ্রাম্যমান আদালত দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছে। বিভিন্ন পত্রিকা অনলাইন পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর সোমবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. ইকতেখারুল ইসলাম অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন।

এই ইটভাটার কোন প্রকার অনুমোদন নেই,নেই পরিবেশ অধিদপ্তর কিংবা কৃষি বিভাগের ছাড়পত্র। দিনরাত অবাধে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে। ইটভাটাটি ফসলী জমির মাঝখানে স্থান করা হয়েছে। কোন প্রকার নিয়মনীতিই মানা হচ্ছে না। ধোঁয়ার কারণে মরে যাচ্ছে গাছপালা। পরিবেশ হচ্ছে বিপন্ন।

ভ্রাম্যমান আদালত কে বি ব্রিকস নামের ওই ভাটায় অভিযান চালিয়ে ভাটার অংশীদার ঈশ্বরদী উপজেলা দাদাপুর গ্রামের নুর ইসলাম সরদারের ছেলে খাইরুল ইসলাম চাটমোহর উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের আনকুটিয়া গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে ইকবাল হোসেনকে ইট প্রস্তুত ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৩ এর ধারা লংঘন করায় ১৪ ১৬ ধারা মোতাবেক এই জরিমানা করা হয়। 

এলাকাবাসী জানান,এই ইটভাটা শুরু থেকেই কাঠ পোড়াচ্ছে। এলাকার কতিপয় ব্যক্তির সহায়তায় ঈশ্বরদী থেকে এসে ফসলী জমির মাঝে এ্ই ইটভাটা স্থাপন করা হয়েছে।

উপজেলার গুনাইগাছা,ধুলাউড়ি,চরসেনগ্রাম,হরিপুর,রেলবাজারের সিঙ্গা মাঠসহ অন্যান্য স্থানের ১০টি ইটভাটায় দেদারছে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে। এদের কোন প্রকার লাইসেন্স নেই। নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. ইকতেখারুল ইসলাম বলেন,অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে। কোন ছাড় দেওয়ার সুযোগ নেই।

প্রসঙ্গত, চাটমোহরে ইটভাটার মালিকরা মানছে না ইট তৈরি ভাটা স্থাপন আইন। তারা নিজেদের ইচ্ছেমতো আবাসিক,কৃষি জমি পরিবেশ সংকটাপন্ন এলাকায় ইটভাটা স্থাপন করেছে। আর এসব ইটভাটায় অবাধে পোড়ানো হচ্ছে মূল্যবান বনজ ফলদ গাছ। ভাটার ধূলা,কালো ধোঁয়া আগুনের তাপে ধ্বংস হচ্ছে নিকটবর্তী এলাকার সবুজ মাঠ,বনজ সম্পাদ ফলদ গাছ। এসকল ইটভাটার কোন প্রকার অনুমোদন নেই। নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র কিংবা কৃষি বিভাগের প্রত্যায়নপত্র।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা