চাটমোহরে ফসলী জমিতে অবাধে পুকুর খনন, দেখার কেউ নেই 

news-details
বাংলাদেশ

বাবু, চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি : 
পাবনার চাটমোহরে সরকারি বিধি নিষেধ উপেক্ষা করে ফসলী জমিতে অবাধে চলছে পুকুর খনন। পরিবেশ উন্নয়নের জন্য নয়,সেচের জন্যও নয়। উপজেলা জুড়ে এসব পুকুর খনন করা হচ্ছে মাছ চাষের জন্য। কৃষিজমিতে এসব পুকুর খননের কারণে ফসলী জমি সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় নষ্ট হচ্ছে। পাশাপাশি  হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ। নতুন খননকৃত ঐসব পুকুরের মাটি বিক্রি হচ্ছে ইটভাটায়। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও এখনো থেমে নেই পুকুর খনন ও  ইটভাটা নির্মাণ। স্থানীয় প্রশাসনের সাথে আতাত করে চলছে অবৈধ পুকুর খনন। ফলে নষ্ট হচ্ছে উর্বর ফসলি জমি। পুকুর খনন বন্ধে স্থানীয় প্রশাসন মাঝেমধ্যে অভিযান চালালেও ইটভাটা বন্ধে পদক্ষেপ নেই।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,উপজেলার ডিবিগ্রাম ইউনিয়নের কামালপুর মাঠে দিন-রাত চলছে পুকুর খনন। জনৈক ইরাজ উদ্দিনের সার্বিক তত্বাবধানে ফসলী জমিতে অবাধে পুকুর খনন করা হচ্ছে। পুকুর খননের কারণে কৃষিজমি প্রতিনিয়ত কমছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে সরেজমিনে কামালপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ফসলী জমিতে এক্সসেভেটর (ভেগু) লাগিয়ে অবাধে পুকুর খনন করা হচ্ছে। স্থানীয়দের অভিযোগ,নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রশাসনকে হাত করে চলছে এই পুকুর খননের কাজ। 

আরও জানা গেছে, কয়েক বছর ধরেই এলাকায় উর্বর ফসলি জমিতে পুকুর-দিঘি খননের হিড়িক চলছে। প্রতি বছরই ছোট-বড় নতুন পুকুর খনন হচ্ছে। এসব পুকুরের কারণে জমিতে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। এছাড়া ইটভাটায় খেয়ে ফেলছে আরো কৃষিজমি। যেটুকু কৃষিজমি আছে ইটভাটার কালো ধোঁয়া ও জলাবদ্ধতায় ফসল উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মারাত্মকভাবে। তিন ফসলি জমিতে গড়ে তোলা হয়েছে এসব ইটভাটা। ইটভাটায় ব্যবহৃত হচ্ছে নতুনভাবে খননকৃত পুকুরের মাটি।
 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

© 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা