বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ১০:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মোবাইলে পেমেন্ট করলেই বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে ইলিশ মাছ সপ্তম শ্রেণির এক মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় যুবক গ্রেফতার সাভারে একটি বাড়ির ছাদে উঠে কুপিয়ে গাছ কেটে ফেলা সেই নারী গ্রেপ্তার রেলের জায়গা দখল করে পার্ক নির্মাণ করায় কাজ বন্ধ করে দিলেন রেলমন্ত্রী দুর্বৃত্তদের কোপে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে পৌর কাউন্সিলর পাঁচ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ১২ বছরের এক কিশোর গ্রেফতার ভুলে এক নয়নের পরিবর্তে আরেক নয়নকে কারাগারে, অতঃপর ২৭ দিন পর মুক্ত পারিবারিক বিরোধের কারণে ঘুমন্ত চাচাতো ভাইকে কুপিয়ে হত্যা ফ্রিতে সিগারেট নিতে গিয়ে পুলিশের কাছে ভুয়া এসআই আটক পদ্মা নদীতে ইলিশ ধরতে গিয়ে দুই স্পিডবোটের সংঘর্ষে এক জেলে নিহত

রোগীর মৃত্যু নিয়ে হাসপাতালের দুই রকম তথ্য

ফরিদপুর প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ৯৩ বার পঠিত

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আব্দুল জলিল সরদার নামে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে।  আজ বুধবার সকালে তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে ফরিদপুর মেডিকেলে ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা দাড়ালো দুইজন।

তবে হাসপাতাল কর্তৃপেক্ষের দাবি- ডেঙ্গুতে নয়, আব্দুল জলিল সরদার কিডনিজনিত রোগে মারা গেছেন।

কিন্তু হাসপাতাল থেকে সরবরাহ করা মৃত্যু প্রমাণ সনদ অনুযায়ী, মৃত ওই ব্যক্তির নাম আব্দুল জলিল সরদার। তার বাড়ি ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায়। মৃত্যুর কারণের জায়গায় লেখা রয়েছে ‘ডেঙ্গু শক সিনড্রোমে’।

এ বিষয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক কামদা প্রসাদ সাহা জানান, হাসপাতালে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে এটি নিশ্চিত, তবে তা ডেঙ্গুতে নয়।

মৃত্যু প্রমাণ সনদের কথা উল্লেখ করে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, সেটি সঠিক নয়, পরবর্তীতে নতুন ডেথ সার্টিফিকেট দেয়া হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান শারমীন (২২) নামে এক তরুণী। তিনি মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট এলাকার মো.রুবেলের মেয়ে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নতুন করে আরও ৬৫ জন রোগী ফরিদপুরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া আজ বুধবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত জেলার সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৩৬ জন ডেঙ্গু রোগী।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. এনামুল হক জানান, গত দুই সপ্তাহে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৮৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন ১২১ জন। ৩০ জনকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। মারা গেছেন একজন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৩৬জন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 sorejominbarta.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com