মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:২৪ অপরাহ্ন

ফরিদপুর-এ চলছে জামায়াত নেতার অবৈধ ব্যবসা

আনিচুর রহমান. ফরিদপুর থেকে :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ জুলাই, ২০১৯
  • ৪৩১ বার পঠিত

মাদারীরের বিশিষ্ট জামাত নেতা মাসউদুর রহমান বর্তমান ফরিদপুর আরামবাগ হাসপাতালের এম.ডি.। যার অবৈধ গুড়া সাবানের / ডিটারজেন্ট ফ্যাক্টরীর সন্ধান পাওয়া গেছে। যা ফরিদপুর সদর উপজেলার চর কমলাপুর ব্রীজ এর নিকটে কালিবাড়ী সড়কে অবস্থিত।

মাসউদুর রহমান এর ফ্যাক্টরীর নাম দেওয়া হয়েছে ফরাজী মাল্টি প্রোডাক্টস। আর এই প্রোডাক্টস এর নাম রাখা হয় আরাম পাওয়ার হোয়াইট /ARAM Power White (Detergent Powder) । মাসউদুর রহমান এর বাবা মাইনুদ্দিন ফরাজীর নামের সাথে মিল রেখে ফ্যাক্টরীর নাম করণ করা হয় ফরাজী মাল্টি প্রোডাক্টস।

এই সাবানের গুড়া অবৈধভাবে উৎপাদন এবং বিপণন করে আসছে যার গুণগত মান সর্বনিম্নমানের। এ ফ্যাক্টারীটি সরকারের বি.এস.টি.আই (B.S.T.I) এর অনুমোদন বিহীন, যা পরিবেশ এবং অত্র এলাকার জন্য ক্ষতিকর। ফ্যাক্টরীটির কোন প্রকার লইসেন্স বা বৈধতা নাই, যা সম্পূর্ণভাবে অবৈধ। এই ফ্যাক্টরীটি দীর্ঘ এক বছর যাবত অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

কথিত মাসউদুর রহামান শুধু অবৈধ ব্যবসায় নয় আরও বিভিন্ন ধরণের অপকর্মের সাথে জড়িত। মাসউদুর রহমান এর মূল বাড়ি মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার খালিয়া গ্রামে। মাদারীপুর জেলায় বিভিন্ন মাধ্যমে জানা যায় যে, তিনি মাদারীপুর টেকের হাটের বিভিন্ন হাসপাতালের সাথে জড়িত ছিলেন। মা হাসপাতাল, জেনারেল হাসপাতাল, জম জম হাসপাতাল, এ সমস্ত হাসপাতাল থেকে তিনি বিপুল অংকের অর্থ আত্মসাৎ এবং নারী কেলেঙ্কারীসহ বিভিন্ন দুর্নীতি করার কারণে ধরা পড়েন ফলে সে সমস্ত প্রতিষ্ঠান থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। ফলে দীর্ঘদিন সে আত্মগোপনে ছিলেন। ঐ সময় তিনি মাদারীপুরের রাজৈর থানার জামায়াতের আমীর ছিলেন। টেকেরহাটের এ সকল অপকর্ম ছাড়া আরও বিভিন্ন অপরাধের কারণে তাকে জামায়াতের উপজেলা আমীর ও রোকন পদ থেকে বাতিল করা হয়। আরও জানা যায় আলী চৌধুরী, আলম ও তার ছোট ভাই মামুন এই প্রতারক চক্রের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে তার প্রতিনিধি হিসাবে।

মাসউদুর রহমান আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় ফরিদপুর-এ জামায়াত নেতা, আরামবাগ হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুত তাওয়াব এর সাথে যোগাযোগ করে এবং ধীরে ধীরে তার বিশ্বস্ততা অর্জন করে ফরিদপুর-এ অবস্থান করে। পুনরায় বাংলাদেশ জামায়াত এর সাথে জড়িয়ে পড়ে ও বর্তমান জামায়াতের রোকুন। এরপর ফরিদপুর আরামবাগ হাসপাতালের এম.ডি. হিসাবে তার আবির্ভাব ঘটে। প্রফেসর তাওয়াব এর সরলতার সুযোগ নিয়ে হাসপাতাল থেকে পিসির নামসহ বিভিন্নভাবে হাতিয়ে নেয় হাজার হাজার টাকা। এই অবৈধ টাকা দিয়েই গুড়া সাবানের ফ্যাক্টারী খুললেন ফরিদপুর-এ, যাহা সম্পূর্ণ অবৈধ একটি ফ্যাক্টরী। এই কারখানার পন্য বাজারজাত করা হচ্ছে আরামবাগ হাসপাতালসহ ফরিদপুরের বিভিন্ন দোকানে। আয় করা হচ্ছে অবৈধভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা।
এছাড়া মাসউদুর রহমান এর বিরুদ্ধে আরও তথ্য জানতে মাদারীপুর টেকেরহাটের বিভিন্ন হাসপাতালে গেলে অনেকেই জানান তিনি বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জরিত এবং তার কারনে অনেক গুলো হাসপাতাল আজ ধংসের মুখে।
এই ডিটারজেন্ট পাউডার ব্যবহারকারীদের সাথে সাক্ষাত করলে অনেকেই জানান এ পাউডার ব্যবহার করলে হাত পা চুলকায় এর গুনগত মান সর্ব নিম্ন মানের।

এ বিষয়ে আরাম হোয়াইট গুড়া পাওডার এর কারখানায় গেলে কারখানার দায়িত্বে থাকা ম্যানেজার মাসউদুর রহমান এর ভাতিজা ইয়ামিন ভিডিও সাক্ষাতকারে জানান ফ্যাক্টরীর কোন বৈধতা নেই। তিনি সাক্ষাতকারে আরও বলেন কারখানাটি সম্পূর্ণ অবৈধ। তাকে আরও প্রশ্নের জবাবে বেড়িয়ে আসে ফ্যাক্টরীটি এছাড়াও নারী কেলেঙ্কারীর সাথে জড়িত। তিনি আরও জানান কিছু দিন আগেও একটি মেয়ে নিয়ে অবৈধ কার্য্যকালাপরত অবস্থায় ধরা পড়ায় স্থানীয় জনগনের হাত থেকে কোনভাবে প্রানে বাঁচে। এই প্রতিষ্ঠানের মালিক মাসউদুর রহমান এর সাথে সাক্ষাত করলে তিনি জানান ফ্যাক্টরীর কোন কাগজপত্রাদি বা বৈধতা নেই। এছাড়া কারখানার আশপাশের স্থানীয় লোকজনের সাথে সাক্ষাত করলে তারা বলেন এখানে কোন ফ্যাক্টরী বা কারখানা আছে কিনা তা আমাদের জানা নেই। কারণ এই বাড়ির মালিক ফরিদপুর-এ থাকে না। কিন্তু কিসের যেন অফিস আছে। দিনভর বাইরে তালা দিয়ে ভেতরে কাজ করে গুটি কয়েক মহিলা ও পুরুষ।

এ বিষয়ে স্থানীয় জামাত নেতা আরামবাগ হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুত তাওয়াব এর সাথে সাক্ষাত করলে তিনি জানান মাসউদুর রহমান যে আরাম গুড়া পাওডার ফ্যাক্টরী করছে তা সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে। এ বিষয়ে জামায়াত ইসলাম বা সংগঠন কেউ অবগত নয়। তবে যদি সে এই ধরণের বেআইনি কাজের সাথে জড়িত থাকে তাহলে অবশ্যই তার শাস্তি হওয়া উচিত।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 sorejominbarta.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com