সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন

বেনাপোল কাস্টমস কর্মকর্তারা ঘুস বানিজ্যে বেপরোয়া!শুদ্ধি অভিযান নিষ্ফল

মাহমুদুল হাসান বাবু,যশোর জেলা প্রতিনিধি 
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১৪১ বার পঠিত

মাহমুদুল হাসান বাবু,যশোর জেলা প্রতিনিধি : 

বাংলাদেশ কাস্টমস হাউসের অন্যতম শাখা বেনাপোল কাস্টমস হাউসে কর্তৃপহ্মের সন্মতিতে চলছে ঘুস বানিজ্যের মহোৎসব।কর্তৃপহ্ম এটাই বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে যে,দেশ ব্যাপী চলমান শুদ্ধি অভিযানের নেই কোন তোয়াক্কা।সরকার ঘোসিত দূর্নিতী বিরোধী চলমান অভিযান কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে তাদের ঘুস বানিজ্য চালাচ্ছে প্রকাশ্যে দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে ভ’ক্তভোগীকে পোহাতে হচ্ছে নানা বিড়ম্বনা।সরকারের রাজস্ব আহরনে অন্যতম বৃহৎ স্থল বন্দর বেনাপোল বন্দরের দ্বায়িত্বে থাকা বেনাপোল কাস্টমস কর্তৃপহ্মের একাধিক কর্মকর্তাদের অনিয়ম,দূর্নিতী ও ঘুস বানিজ্য চরমে পৌছানোয় প্রকৃত রাজস্ব আহরন ব্যাহত হয়ে জন দূর্ভোগ বাড়ছে।অন্যদিকে স্বল্প সময়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হচ্ছেন চাকরির সুবাধে বেনাপোল কাস্টমস হাউসের দ্বায়িত্ব পালনে আসা বিতর্কিত অসাধু কর্মকর্তারা। বেনাপোল কাস্টমস হাউসের আওতাধীন প্রতিটি সেক্টরেই চলছে নীরব দূর্নিতীর মহোৎসব।সি এন্ড এফ এজেন্টদের নিকট হতে ফাইল প্রতি টাকা গ্রহন,পন্য নিলামে ঘুস বানিজ্য,শতভাগ পরীহ্মনের নামে উৎকোচ আদায়,ইমিগ্রেশানে পাসপোর্ট ছিল বানিজ্য,ভ’য়া বিল, ভাউচার তৈরী করে কাস্টমস হাউসের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ ক্রয়,আসবাবপত্র ক্রয় ও সংস্কার প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারী অর্থ তশ্রুপ সহ বিবিধ দোষে দুষ্ঠ বাংলাদেশ কাস্টমস হাউসের বেনাপোল কাস্টমস শাখাটি।কর্তৃপহ্ম বর্তমানে কতিপয় গনমাধ্যম কর্মীদের সাথে সখ্যতা গড়ে,তাদের ম্যানেজ করেই কু কর্ম পর্দার আড়ালে চাপা রেখে চালাচ্ছে রাম রাজত্ব।বেনাপোল কাস্টমস হাউসে কর্মরত ইন্সেপেক্টের আসাদুল্লাহ আসাদের প্রকাশ্য ঘুস বানিজ্যের ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাসলেও সে এতটাই বেপরোয়া ডাক ছেড়ে বলেন,লিখে যান উপরের অফিসারদের ম্যানেজ করে চলি তাই আমার কিছু হবেনা।ভিডিওিটির সতত্যা যাচায়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হয় বিতর্কিত ঐ কর্মকর্তার সাথে জানালেন তিনি বর্তমানে ছুটিতে আছে,অফিসে এসেন দেখা হবে।কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তাদের ঘুস বানিজ্য জানতে কথা বলা হয় বেনাপোলের স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেনী পেশাজিবীদের সাথে জানা যায় বছর,বছর ধরে চলে আসা অনিয়মের বেড়া জালে বন্দী বেনাপোল কাস্টমস হাউস।আগে এন বি আর,দুদক ও মন্ত্রণালয় ম্যানেজ করে চালাত সিমাহীন দূর্নিতী।বর্তমান সরকারের স্বচ্ছতায় বিপদে পড়ে ভোল পাল্টে কৌশলে চালাচ্ছে অপকর্ম।কাস্টমস হাউসের পালের গোদা খোদ কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরির বিরুদ্ধেই রয়েছে ঘুস নিয়ে আটক ও ঘোষনা বর্হিভ’ত পন্য চালান খালাস দিয়ে (রাজস্ব ফাঁকি দিতে সহায়তা করে)অবৈধ্যভাবে শতকোটি টাকার সম্পদ অর্জনের দ্বায়ে দুদকে অভিযোগ যার খোঁজে মাঠে নেমেছে দূর্নিতী দমন কমিশন (দুদক)।দুদকের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন,বেলাল হোসেন চৌধুরীর বিরুদ্ধে যে সমস্ত অভিযোগ আছে তার তদন্ত চলছে সংশ্লিষ্ঠ বিভাগের কর্মকর্তা নেয়ামুল গাজীকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।বেনাপোল কাস্টমস হাউসের অসাধু কর্মকর্তাদের হয়রানীর স্বীকার নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক সি এন্ড এফ এজেন্ট কর্মচারী জানান,সঠিক কাগজপত্রের ফাইল নিয়ে কাস্টমে গেলেও প্রতি ফাইলে ৫০০/১২০০ টাকা দিতে হবেই অন্য থায় ফাইল পড়ে থাকবে সই হবেনা।অফিসারদের অনৈতিক সুবিধা দেওয়ার প্রশ্নে বদৈনিক সরেজমিন বার্তাকে তিনি আরো জানান,বড় অফিসার গুলো নাম ডাকী সি এন্ড এফ এজেন্টেদের কাছ হতে মাসে বড় অঙ্কের টাকা পায় সই না করলে উপরের কর্মকর্তাদের কাছে নালিশ করার কথা বললে উল্টো বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।কাজেই পাটির কাজ বাচাতে বা জিবীকা নির্বাহের জন্য ওদের অনিয়মের বলি হতে হয় আমাদের। বেনাপোল কাস্টমস কর্তৃপহ্মের অনিয়ম-দূনিতী এখন চরমে উর্দ্ধতন প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের জোরালো তদন্তে শতভাগ বেরীয়ে আসবে স্টেশনটিতে কর্মরত অসাধু কর্মকর্তাদের দূর্নিতীর আমলনামা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 sorejominbarta.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com