সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ১০:১২ অপরাহ্ন

১৫ বছরের মেয়েকে বিয়ের ৫ দিন পর বরের কারাদণ্ড

নেত্রকোণা প্রতিনিধি :
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩৪ বার পঠিত

প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলায় বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করেছিল দুই পরিবার। বাল্যবিয়ের পাঁচদিন পর গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে বিষয়টি জানতে পেরে বরকে একমাসের কারাদণ্ড ও ঘটকসহ উভয়পক্ষের পরিবারকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নেত্রকোণার আটপাড়া উপজেলার স্বরমুশিয়া ও বানিয়াজান ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটেছে। বর স্বরমুশিয়া ইউনিয়নের হরিপুর এবং কনে বানিয়াজান ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা।

আটপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজা সুলতানা বিষয়টি তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আটপাড়া উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে গোপনে বাল্যবিয়ে করিয়েছিল বর-কনের পরিবারের সদস্যরা। ওই গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ১৫ বছর বয়সী মেয়ে কলি আক্তারকে আবু তাহেরের ২১ বছরের ছেলে জাকির হোসেনের সঙ্গে দেয়া হয়েছিল। বিয়ে সম্পন্নের খবর পাওয়ার পর থেকে অপরাধীদের ধরতে তৎপর হয় উপজেলা প্রশাসন। পরে শুক্রবার বর জাকিরকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, ছেলের বাবা তাহের ও -মেয়ের বাবা রাজ্জাককে ১০ হাজার করে করে জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ঘটক উজ্জ্বল মিয়াকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি আরও জানান, এর আগে গত রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে মৌলভীর মাধ্যমে গোপনে বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করে ওই দুই পরিবার। মৌলভীর পরিচয় শনাক্ত করে তার বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে বাল্যবিয়ে বৈধ করতে মেয়ের পরিবার বানিয়াজান ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ফেরদৌস রানা আঞ্জু ও সচিব আব্দুল মান্নানকে ম্যানেজ করে বয়স বাড়িয়ে জন্ম নিবন্ধন করিয়ে নেন। জেনে-শুনে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তৈরি করার দায়ে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সচিবের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ইউএনও মাহফুজা সুলতানা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 sorejominbarta.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com