বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৩৮ অপরাহ্ন

পেঁয়াজ নেই, তবুও বিক্রির ঘোষণা টিসিবির!

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৬২ বার পঠিত

কেনা হয়নি পেঁয়াজ। সরকারের গোডাউনেও মজুত নেই। তারপরও ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির ঘোষণা দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। কোনো প্রস্তুতি না থাকায় খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেনি ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোমবার টিসিবির মুখপাত্র মো. হুমায়ুন কবির বলেন, আজ থেকে ন্যায্যমূল্যে খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রির কথা ছিল। কিন্তু বিক্রি শুরু হয়নি। পেঁয়াজ কেনার জন্য কাজ শুরু হয়েছে। খোলাবাজারে বিক্রি শুরু করতে কয়েক দিন সময় লাগবে।

তিনি বলেন, পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে দুটি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে একটি স্বল্প সময়ে বন্দর থেকে পেঁয়াজ কেনার জন্য টিসিবি কাজ শুরু করেছে। পেঁয়াজ কেনা হলে এর ওপর ভর্তুকি দিয়ে দাম নির্ধারণ করা হবে। দ্রুত সময়ে এসব কার্যক্রম শেষ করা হবে। এছাড়া দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ হিসেবে মিসর, তুরস্কসহ কয়েকটি দেশ থেকে আগামীতে পেঁয়াজ আমদানির কথাবার্তা চলছে।

দেশে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতার কারণে রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সভাপতিত্বে সভা হয়। সভায় বাজারে স্থিতিশীলতা আনার জন্য কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। যার একটি ছিল সোমবার থেকে টিসিবির মাধ্যমে খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করা। এছাড়া বন্দরে আমদানি করা পেঁয়াজ দ্রুত খালাস করা, পরিবহনের নির্বিঘ্ন চলাচল নিশ্চিত করা, পেঁয়াজ আমদানিতে এলসি মার্জিন ও সুদের হার হ্রাসে বাংলাদেশ ব্যাংককে পত্র দেয়ার মতো কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এরপর পেঁয়াজের দামের ঊর্ধ্বগতি রোধে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) থেকে ন্যায্যমূল্যে ট্রাক সেলের মাধ্যমে টিসিবি খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করবে বলে রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে এলসি মার্জিন এবং সুদের হার হ্রাসের প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বন্দরে আমদানিকৃত পেঁয়াজের খালাস প্রক্রিয়া দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করা এবং নির্বিঘ্নে পরিবহন নিশ্চিত করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবর চিঠি পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, নিজেদের বাজার সামাল দিতে পেঁয়াজ রফতানির ন্যূনতম মূল্য টনপ্রতি ৮৫০ ডলার বেঁধে দিয়েছে ভারত। এ খবরে দুদিনে দেশের বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে প্রায় ২০ থেকে ২৫ টাকা।

ঢাকার বড় বড় বাজারে এখন ভালোমানের দেশি পেঁয়াজ ৭০-৭৫ টাকা, দেশি কিং নামের একধরনের পেঁয়াজ ৬০-৬৫ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৬০ টাকায়বিক্রি হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবারও দেশি পেঁয়াজ ৫০-৫৫ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ৪৫-৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 sorejominbarta.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com