জাতীয় নির্বাচনে চোখ কূটনীতিকদের

জাতীয় নির্বাচনে চোখ কূটনীতিকদের

বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনপূর্ব রাজনৈতিক পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে বন্ধুরাষ্ট্র ও উন্নয়নসহযোগীরা। বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলো আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন সবার অংশগ্রহণে সুষ্ঠু ও অবাধ দেখতে চায়। পুবের দেশ চীনও তাদের স্বভাবসুলভ কূটনীতিক অবস্থানের বাইরে গিয়ে এবারই প্রথম রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে কথা বলছে। বন্ধুরাষ্ট্রগুলো চলমান সিটি করপোরেশন নির্বাচনও গভীর পর্যবেক্ষণে রেখেছে। এরই অংশ হিসেবে গত মাসে ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কাউন্সেলর বিল মুয়েলারের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপিপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে বৈঠক করেন। খুলনা সিটি নির্বাচনের পর প্রতিক্রিয়া দেখান মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া বার্নিকাট।

কূটনীতিক সূত্র বলছে, প্রতিবেশী দেশ হিসেবে ভারতের কাছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নসহ (ইইউ) প্রভাবশালী দেশগুলো বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হোকÑ এমন মনোভাবের কথা ব্যক্ত করেছে। ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশনের তরফেও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন এবং জনগণের পর্যায়ে বন্ধুত্ব জোরদারের বার্তা দেওয়া হয়েছে বিভিন্ন সময়ে।
ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বাংলাদেশ সফরে এসে বলেছিলেন, আশা করি বাংলাদেশে সামনের জাতীয় নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বর্জন করে। নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতিও কম ছিল বলে দাবি করে আসছে বর্জনকারী দলগুলো। এবার তারা নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরিতে কূটনীতিকদের পাশে চেয়েছেন। বিএনপি নির্বাচন ‘প-’ করতে আন্দোলন করেছিল বলে দাবি সরকারি দলের। উল্লেখ্য, গত নির্বাচনে ভোটদানের হার ছিল ৪০ দশমিক ৫৬ শতাংশ।

চীনের নতুন নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ঝাং ঝু সম্প্রতি বলেছেন, জনমতের প্রতিফলন হয়Ñ এমন নির্বিঘœ নির্বাচন চীন দেখতে

চায়। আমরা সে ধরনের নির্বাচনকে স্বাগত জানাব। বিশ্লেষকরা বেইজিংয়ের ‘নির্বিঘœ’ শব্দ ব্যবহারের ‘মানে’ খোঁজার চেষ্টায় রয়েছেন। অনেকে এটাকে বাংলাদেশের রাজনীতি ইস্যুতে পশ্চিমাদের অবস্থানের কাছাকাছি মনোভাবের প্রকাশ বলছেন। সম্প্রতি পুঁজিবাজারে তাদের সম্পৃক্ততা নবতর সংযোজন। এটা রাজনীতি বা নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে বেইজিংয়ের ঘনিষ্ঠতার কারণে হয়েছেÑ এমনটাই ধারণা আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেকদের।

সদ্যসমাপ্ত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে মর্মে অভিযোগ এনে নিজের হতাশা ব্যক্ত করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট। তিনি বলেন, আমরা সব সময় একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনকে উৎসাহিত করি। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, শুধু ভোটের দিনে যা কিছু ঘটে তা নয়, বরং ভোটের আগেই দলগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা ও বিতর্ক করার অবাধ সুযোগ সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশের পূর্বশর্ত।

সংবিধানের ভেতরে থেকে কীভাবে সব দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা যায়, সে ব্যাপারে কূটনীতিকদের মধ্যে আলোচনা চলছে। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানের ফাঁকে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপে পশ্চিমা একটি দেশের রাষ্ট্রদূত বলেন, আমরা সব সময় সব দলের অংশগ্রহণে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চাই। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনকেও দেখতে চাই শক্তিশালী ভূমিকায়।

সম্প্রতি ইউএসএইডের পরিচালক মার্ক গ্রিন বাংলাদেশ সফরকালে বলেন, বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আমাদের প্রত্যাশার কথা সরকারকে জানানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকার আশা করে, বাংলাদেশ সরকার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটবেÑ এমন সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করবে। গত নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠায়নি ইইউ। এবার তারা সব দলের অংশগ্রহণ চান বলে বিভিন্ন ফোরামে বলেছেন। ইইউ রাষ্ট্রদূত রেনসিয়ে টিয়েরিঙ্ক বলেছেন, আগামী সংসদ নির্বাচন সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ দেখতে চায় ইইউ। ফেব্রুয়ারিতে ইইউ পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফরকালে প্রতিনিধি দলের নেতা জ্যঁ ল্যামবাটও অবাধ অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ওপর জোর দেন। ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার অ্যালিসন ব্লেইকও বলেছেন, যুক্তরাজ্য বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায়।

আনুষ্ঠানিক বক্তব্য না দিলেও বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকগুলোয় কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির পাশাপাশি দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও আগামী নির্বাচন নিয়েই মূলত আলোচনা হয়। তা ছাড়াও সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি তুলে ধরা হয়। নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার না হলে আগামীতে ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি একতরফা নির্বাচন হতে পারেÑ দলের এমন আশঙ্কার বিষয়টিও তুলে ধরা হয়।

সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর মনোভাব জানতে চাচ্ছেন কূটনীতিকরা। তিনি বলেন, কূটনীতিকদের রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা স্বাভাবিক ঘটনা।

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::

More News...

Fatal error: Call to undefined function tie_post_class() in /var/sites/s/sorejominbarta.com/public_html/wp-content/themes/bdsangbad_magazine_themes/includes/more-news.php on line 40