বিএনপির ঐক্য ইস্পাতকঠিন

বিএনপির ঐক্য ইস্পাতকঠিন

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বিএনপির ঐক্য ইস্পাতকঠিন। চাইলেই যে কেউ এতে ভাঙন ধরাতে পারবে না। আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় বিএনপি নেতা এসব কথা বলেন।

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘অনেকে মনে করেছেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়ার পর বিএনপির ঐক্য বিনষ্ট হবে। কিন্তু বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রমাণ করেছেন, কোনো লোভ বা ষড়যন্ত্র বিএনপির ঐক্যে ভাঙন ধরাতে পারবে না। খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও দলের সিনিয়র নেতাদের নেতৃত্বে আমরা আগের চেয়ে অনেক বেশি ঐক্যবদ্ধ।’

‘১/১১ সরকারের সময় সেনা-সমর্থিত সরকার বিএনপিতে ভাঙন ধরানোর চেষ্টা করেছিল। বর্তমান একদলীয় সরকারও বিএনপি ভাঙার ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু তাদের সে ষড়যন্ত্র সফল হবে না।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, ‘খালেদা জিয়া আমদের দলের চেয়ারপারসন। তিনি মিথ্যা মামলায় কারাগারে যাওয়ার পর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও দলের সিনিয়র নেতাদের পরামর্শে দল চলছে। বিএনপি এখন অতীতের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী।’

খালেদা জিয়া এবং বিএনপিকে বাইরে রেখে সরকার আগামী নির্বাচন করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণ ছাড়া বাংলাদেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে না। যতই চেষ্টা করুন আপনারা আর ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন করতে পারবেন না। দেশের জনগণ খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে বাইরে রেখে নির্বাচন করতে দেবে না।’

বারবার দেশের জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করা যাবে না মন্তব্য করে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ বলেছিল, এ নির্বাচন নিয়মরক্ষার নির্বাচন। পরবর্তীকালে সব দলের অংশগ্রহণমূলক একটি নির্বাচন দেওয়া হবে। কিন্তু তারা সেটি না করে দেশের জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছে।

সরকার খালেদা জিয়াকে ভয় পায় মন্তব্য করে বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ভয় পায় বলেই তাঁকে কারারুদ্ধ করা হয়েছে। শুধু যে তাঁকে কারারুদ্ধ করা হয়েছে তা নয়, এ দেশের গণতন্ত্রকে ও জনগণকে কারারুদ্ধ করা হয়েছে।

‘খালেদা জিয়া অসুস্থ, কিন্তু তিনি কী রোগে ভুগছেন—তা এখনো জানানো হয়নি। আসলে সরকারের উদ্দেশ্য খারাপ বলেই কারাগারে খালেদা জিয়াকে তাঁর নিজস্ব চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা করতে দিচ্ছে না। তাদের উদ্দেশ্য যদি ভালো থাকত, তাহলে খালেদা জিয়া যে অসুস্থ, তাঁর জন্য তাঁর ব্যক্তিগত ডাক্তারকে চিকিৎসার জন্য যেতে দিত। ১/১১ সময় জেলে থাকার সময় তাঁর চিকিৎসার জন্য ব্যক্তিগত ডাক্তার দেওয়া হয়েছিল, তাহলে এখন তাঁকে দেওয়া হবে না কেন?’

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘বর্তমান সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে। সেই কারণে আন্তর্জাতিকভাবে এই সরকার স্বৈরাচারী হিসেবে উপাধি লাভ করেছে। তাই বর্তমানে সরকার হচ্ছে স্বৈরাচারী সরকার, অবশ্যই এ সরকারের নেতৃত্বে যে আছেন, তিনি বিশ্বে যে ৫০ জন স্বৈরাচার শাসক আছেন তার মধ্যে পাঁচ নম্বরে আছেন।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি নাছিরুদ্দিন হাজারির সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ প্রমুখ।

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::

More News...

Fatal error: Call to undefined function tie_post_class() in /var/sites/s/sorejominbarta.com/public_html/wp-content/themes/bdsangbad_magazine_themes/includes/more-news.php on line 40