মেহেদী, স্বর্ণা ও এ্যানি দেশে ফিরছেন শুক্রবার

মেহেদী, স্বর্ণা ও এ্যানি দেশে ফিরছেন শুক্রবার

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি :
নেপালে ত্রিভুবন বিমান বন্দরে সোমবার (১২মার্চ) দুপুরে বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস-বাংলার বিমানে থাকা মৃতুঞ্জয়ী গাজীপুরের শ্রীপুরের মেহেদী, স্বর্ণা ও এ্যানি দেশে ফিরছেন কাল। শুক্রবার নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-ফ্লাইটে তাঁরা দেশে ফিরবেন বলে নিশ্চিত করেছেন দুর্ঘটনার পর নেপাল যাওয়া ফারুক হোসেন প্রিয়কের বন্ধু রফিকুল ইসলাম রাসেল। রাসেল আরো জানায়, নেপালের চিকিৎসকের অনুমতি সাপেক্ষে তাদের দেশে এনে চিকিৎসা করা হবে। মেহেদী, স্বর্ণা ও এ্যানি শারিরীক অবস্থা আগের চাইতে কিছুটা উন্নতির দিকে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। হাসপাতালের চিকিৎসাধীন বিছানায় শুয়ে আহত এ্যানি তাঁর সন্তান ও স্বামীর খোঁজ করছিলেন। এ্যানিকে এখনও তাঁর স্বামী-সন্তানের মৃত্যুর সংবাদ জানানো হয়নি। উল্লেখ্য, নেপালের ত্রিভুবন বিমান বন্দরে সোমবার (১২ মার্চ) দুপুরে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়। এতে গাজীপুরের শ্রীপুরের নগর হাওলা গ্রামের ফারুক ও মেহেদী হাসান দম্পতির পাঁচ সদস্য। বিমান থাকা দুই সম্পতির পাঁচ সদস্য হলেন, শ্রীপুরের নগরহাওলা গ্রামের মৃত শরাফত আলীর ছেলে ফারুক আহমেদ (৩২), তাঁর স্ত্রী আলমুন নাহার এ্যানি (২৫), তাদের এক মাত্র সন্তান প্রেয়সী (৩) ও নগরহাওলা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান (৩৩) ও তাঁর স্ত্রী সাঈদা কামরুন্নাহার স্বর্ণা আক্তার (২৫)। ফারুক পেশায় একজন ফটোগ্রাফার, মেহেদী হাসান পেশায় ব্যবসায়ী ছিলেন। ফারুক ও মেহেদী হাসান সম্পর্কে মামাতো ফুফাতো ভাই। এদের মধ্যে নগরহাওলা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান, তাঁর স্ত্রী সাঈদা কামরুন্নাহার স্বর্ণা ও ফারুক আহমেদের স্ত্রী আলমুন নাহার এ্যানি আহতবস্থায় নেপাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অপর দুই সদস্য ফারুক আহমেদ প্রিয়ক ও তার এক মাত্র সন্তান প্রিয়ংমনী তামাররা বিমান বিধ্বস্তে মারা যান।

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::

More News...

Fatal error: Call to undefined function tie_post_class() in /var/sites/s/sorejominbarta.com/public_html/wp-content/themes/bdsangbad_magazine_themes/includes/more-news.php on line 40